Tepantor

অপকর্মের প্রতিবাদ করায় নবীনগরে ব্যবসায়ীকে হত্যার হুমকী দিল সেই বিতর্কিত সীতানাথ

১৯ এপ্রিল, ২০২২ : ৮:১১ অপরাহ্ণ ৪৩৬

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় স্থানীয় কালীবাড়ি কমিটির সভাপতি সীতানাথ সূত্রধরের বিভিন্ন অপকর্মের প্রতিবাদ করায় এবার বাজারের এক ব্যবসায়ীর ওপর হামলা করে তাকে প্রাণনাশের হুমকী দিয়েছে বিতর্কিত হিন্দুনেতা সীতানাথ সূত্রধর। হামলার শিকার কালীপদ সূত্রধর (৪২) নবীনগর বাজারের উপজেলা পরিষদ সড়কের একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। হামলার পর ভুক্তভোগী কালীপদ সূত্রধর মামলায় সীতানাথ সূত্রধরকে এক নম্বর আসামী করে মোট সাতজনের নাম উল্লেখ করে আদালতে মামলা করেছেন।

মামলার অন্য আসামীরা হলেন, সীতানাথের ভাই শ্রীনাথ সূত্রধর, ছেলে সুভাষ সুত্রধর, ভ্রাতুষ্পুত্র পলাশ সূত্রধর, বিকাশ সূত্রধর, শ্যামল সূত্রধর ও ভাগ্নে প্রাণেশ সূত্রধর।

বিজ্ঞ আদালত ওই মামলায় আসামিদের প্রতি সমন জারি করে আগামিকাল বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) সীতানাথসহ সাত আসামীকে আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার এজাহার ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মামলার এক নম্বর আসামি সীতানাথ সূত্রধর নবীনগর কেন্দ্রীয় কালীবাড়ি কমিটির সুনির্দিষ্ট কোন কমিটি না থাকলেও সীতানাথ প্রভাব খাটিয়ে সভাপতি পদে প্রায় দুই যুগ ধরে অধিষ্ঠিত রয়েছে। সম্প্রতি কালীবাড়ি কমিটির এক সভায় বাজারের ব্যবসায়ী কালীপদ সূত্রধর বছরের পর বছর ধরে যে কালীবাড়ির কমিটিতে কোন সাধারণ সম্পাদক নেই এবং যে কমিটির কোন হিসাবপত্রের হদিস নেই সেই কমিটি দ্রুত ভেঙ্গে নতুন কমিটির দাবি জানান। এসময় সীতানাথের নানা অপকর্মের ফিরিস্থি তুলে ধরে দ্রুত তাকে (সীতানাথ) কালীবাড়ি কমিটি থেকে অব্যাহতি দেয়ারও জোর দাবি তুলেন কালীপদ সূত্রধর ও তার ভাই মিঠু সূত্রধর। এ সময় সভায় উপস্থিত থাকা স্থানীয় সাবেক পৌর কাউন্সিলর জগদীশ বর্মনও কালীবাড়িতে সীতানাথের নেতৃত্বে থাকা বিতর্কিত কমিটিকে দ্রুত ভেঙ্গে নতুন করে কমিটি গঠনের দাবী তুলেন। এসময় সীতানাথ ক্ষিপ্ত হয়ে কালীপদ সূত্রধরের কাকা ও মিঠু সূত্রধরের বাবা প্রয়াত বাসুদেব সূত্রধরকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এসময় সীতানাথ সূত্রধরের সঙ্গে কালীপদ ও মিঠু সূত্রধরের কথাকাটি হয়।কালীপদ সূত্রধর জানান, এ ঘটনার জের ধরে পরদিন ৯ মার্চ বিকেল আনুমানিক ৪টার দিকে আমি বাসায় ফেরার পথে আদালত পুকুরের পাড়ে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা সীতানাথ সূত্রধর ও তার ভাই ভাতিজারা আমাকে প্রাণে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে লাঠিশোঠা নিয়ে আমার ওপর অতর্কিতে হামলা চালায়। স্থানীয় সাবেক কমিশনার জগদীশ বর্মণ বলেন, ‘ঘটনাটি খুবই দু:খজনক। কালীবাড়িতে সীতানাথ সাংবাদিক মিঠুর মৃত বাবাকে নিয়ে অশ্রাব্য ভাষায় কথা বলেছেন। এমন জঘণ্য ঘটনার পর যদি উল্টো সীতানাথই কালীপদের ওপর হামলা করে তাকে প্রাণনাশের হুমকী দেয়, সেটি কখনই মেনে নেয়া যায়না। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে কঠোর বিচার দাবি করছি।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক স্থানীয় হিন্দু নেতা বলেন’সম্প্রতি সীতানাথ একটি প্রভাবশালী মহলের ইন্ধনে নবীনগরের বিশিষ্ট দুই সাংবাদিক গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু ও মিঠু সূত্রধর পলাশের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে ও হামলা চালিয়ে দুজনকে নানাভাবে হয়রানি করছেন। অথচ কোটিপতি সীতানাথ গরীবের ত্রাণের তালিকায় তার নিজের ছেলের বউ, ভাতিজা, বোন ভাগ্নেসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজনের নাম অন্তভূর্ক্ত করে যে দুর্নীতি করলো, আজও তার কোন বিচার হল না। ” তাই আমাদের প্রশ্ন, অল্পদিনে কোটিপতি হয়ে যাওয়া সীতানাথের একের পর এক এসব অপকর্ম করেও কিভাবে সে কালীবাড়ির সভাপতি এবং হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের মতো একটি জাতীয় সংগঠনে এবারও সেক্রেটারীর দায়িত্ব পায়? তাই এসব অপকর্মের সুষ্ঠু তদন্ত করে সীতানাথের বিরুদ্ধে কঠোর বিচার হওয়া জরুরী দরকার বলে আমরা মনে করছি।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজ্ঞ আইনজীবী খালেদা আক্তার মুন্নি বলেন,’ব্যবসায়ী কালীপদের ওপর হামলা ও তাকে প্রাণনাশের হুমকী দেয়ার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় বিজ্ঞ আদালত আসামীদের প্রতি সমন জারি করে আগামি ২১ এপ্রিল সব আসামিকে (আগামিকাল বৃহস্পতিবার) হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছেন। আসামীরা হাজির হওয়ার পর আমরা মাননীয় আদালতের কাছে তাদের গ্রেপ্তারী পরোয়ানা চেয়ে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।’ এ বিষয়ে আসামী সীতানাথ সূত্রধরের সঙ্গে বারবার যোগাযোগ করেও তার কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। উল্লেখ্য যে, সীতানাথ সূত্রধরের বিরুদ্ধে গরীবের ত্রাণের তালিকায় তার (কোটিপতি সীতানাথ) ছেলের বউ, ভাতিজা, বোন ভাগ্নিসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজনের নাম অন্তর্ভূক্ত করার বিষয়টি সেসময় দেশের প্রায় সব মূলধারার পত্রিকায় তুলে ধরায়, সীতানাথ ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় চিহ্নিত একটি প্রভাবশালী মহলের সহযোগিতায় নবীনগরের সিনিয়র সাংবাদিক গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু এবং মিঠুসূত্রধর পলাশের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করে দুই সাংবাদিককে নানাভাবে হয়রানি করছেন। এ নিয়ে সর্বত্র নিন্দার ঝড় ওঠলেও, বিতর্কিত সীতানাথের নানা অপকর্ম রহস্যজনক কারণে চাপা পড়ে রয়েছে।

Tepantor

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।