Tepantor

ব্যবসায়ী মহসিন কে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিল খুনি আরিফ

৭ মে, ২০২২ : ৯:৪৮ অপরাহ্ণ ১২৫২

আশরাফুল মামুন; ঈদ আগের দিন ইফতারের পর আখাউড়া খলাপাড়া গ্রামে ব্যবসায়ী মহসিন সরকার খুনের ঘটনায় প্রধান আসামি মোঃ আরিফ (৩৫) কে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। শনিবার (৭ মে) বিচারকের কাছে ১৬৪ ধারায় মহসিন কে ছুরিকাঘাতে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে ঘাতক আরিফ(৩৫), ঘটনার ১ সপ্তাহের মধ্যেই মূল আসামি কে গ্রেফতার করে তার স্বীকারোক্তির পর পুলিশের দক্ষতার প্রশংসা করেছেন সংশ্লিষ্টরা। এদিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঘাতক আরিফের ফাঁসির দাবিতে সরব আখাউড়ার সচেতন মহল। তাদের কথা হলো কথা কাটাকাটির সামান্য তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে একজন নিরীহ ব্যবসায়ী কে হত্যা করে যে অপরাধ করেছেন তার যদি কঠোর শাস্তি না হয় তাহলে অন্যরা শিক্ষা পাবে না। এসময় পুলিশ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিটি উদ্ধার করেছে।

Tepantor

অত্র থানা পুলিশের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ঘটনার পর থেকে খুনি আরিফ পালিয়ে গিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গা চট্টগ্রাম, নারায়ণ গঞ্জ,নরসিংদী, ঢাকায় আত্নগোপন করার চেষ্টা করে। পুলিশ গোয়েন্দা নজরদারি চালিয়ে কৌশলে গতকাল শুক্রবার আরিফ কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। তাকে গ্রেফতার করতে পুলিশের খাবার ঘুম ছেড়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে।
পুলিশ আরো জানিয়েছে, আরিফের পিতা আঃ আউয়াল মিয়া কে আগেই গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। আউয়াল মিয়া গেল ইউপি নির্বাচনে উপজেলার মোগড়াের ৭ নং ওয়ার্ড থেকে মেম্বার প্রার্থী ছিলেন।

গত সোমবার ( ২ মে) সন্ধ্যায় ইফতারের পর বাড়ি ফেরার পথে আখাউড়া উপজেলার খলাপাড়া গ্রামে মহসিন সরকার( ৩৬) নামে এক যুবক কে ছুরিকাঘাতে খুন করে একই এলাকার আউয়াল মিয়ার প্রবাস ফেরত ছেলে আরিফ । মহসিন অত্র উপজেলার মোগড়া ইউনিয়নের খলাপাড়া গ্রামের মোঃ শহিদুল সরকারের ২য় ছেলে। মহসিনের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। মহসিন পেশায় একজন পন্যের ডিস্টিবিউটর ছিলেন।

মহসিনের ছোট ভাই মোঃ ইসমাইল সরকার বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একই গ্রামের বাসিন্দা আউয়াল মিয়ার ছেলে মোঃ আরিফুল ইসলাম মহসিন কে গলায় ছুরিকাঘাতে হত্যা করে। ইসমাইল সরকার আরো বলেন, ইফতারের পরে খলাপাড়া কবরস্থানের পাশে আগে থেকে উৎ পেতে থাকে আরিফুল ইসলাম ও তার সহযোগী চার পাঁচজন, তারপর কাছে এসেই নিরস্ত্র মহসিনের উপর ঝাপিয়ে পড়ে আরিফ সহ তার সহযোগীরা, প্রথমে মহসিনের বুকে তারপর পিঠে ছুরিকাঘাত করে ঘাতক আরিফ, মহসিনের চিৎকারে এলাকাবাসীরা উদ্ধার করে তাকে আখাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মহসিন কে মৃত ঘোষণা করেন।

আখাউড়া থানার ওসি তদন্ত সঞ্জয় সরকার ঘাতক আরিফ আদালতে মহসিন হত্যার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Tepantor

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।