Tepantor

কিডনি ফেইলর হয়ে গুরুতর অসুস্থ আখাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার বন্ধের আহবান

১৩ মে, ২০২২ : ৯:২৩ অপরাহ্ণ ১৪১

আশরাফুল মামুন; আখাউড়া উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কাশেম ভুইয়ার দুটি কিডনি বিকল হওয়ার পথে। একারণে তিনি দীর্ঘ দিন ধরে অসুস্থ । কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট করে নতুন কিডনি স্থাপন না করলে উনার বাঁচার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তাই জরুরি ভিত্তিতে অপারেশন করার জন্য এ সপ্তাহে হাসপাতালে ভর্তি হবেন। তিনি দাবি করেণ সম্প্রতি একটি মহল রাজনৈতিক ভাবে সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য মিথ্যা, বানোয়াট তথ্য দিয়ে অপপ্রচার করা হচ্ছে। এসব কারণে এই শারিরীক অসুস্থতার সময়ে তিনি আরো অধিক মানসিক কষ্ট পেয়েছেন। তাই তার বিরুদ্ধে কোন মিথ্যা অপপ্রচার কিংবা কুৎসা না রটানোর অনুরোধ করে সুস্থতার জন্য সকলের দোয়া চেয়েছেন। শুক্রবার (১৩মে) দুপুরে প্রতিবেদকের সাথে মোবাইল ফোনে এসব কথা বলেন, আখাউড়া উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক আবুল কাশেম ভুইয়া।

Tepantor

গত কয়েক দিন ধরে চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হচ্ছে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী ভুইয়া এবং আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বিষয়ে সাংবাদিকদের সাথে খোলামেলা কথা বলে মন্ত্রী মহোদয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করেছেন । আবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেইসবুক পোস্ট দিয়ে বলা হচ্ছে তিনি ভূমিহীনদের আশ্রয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য ছিলেন। এসময় তিনি দূর্নীতির মাধ্যমে অর্থ আত্মসাত করেছেন। কিন্তু এসব অভিযোগ সবই মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রনোদিত এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার যড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কাশেম ভুইয়া। তিনি আরো বলেন, অনেকেই আমার বক্তব্য সাংবাদিকদের নিউজ পুরোটা না বুঝেই তাকে ভুল বুঝছেন এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপত্তিকর মন্তব্য করছেন এটা জানতে পেরে তিনি খুবই কষ্ট পেয়েছেন যা তিনি কখনো- ই আশা করেন নি।

আবুল কাশেম ভুইয়ার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে স্ট্যাটাস দেওয়া হয়েছে এসব ভিত্তিহীন দাবি করে তিনি যুক্তি উপস্থাপন করে সু স্পষ্ট ব্যাখ্যা দিয়েছেন যা হুবহু তুলে ধরা হলোঃ-

আমাদের প্রাণপ্রিয় নেতা ও আমাদের অভিভাবক, কসবা আখাউড়ার প্রাণপুরুষ উন্নয়নের রূপকার ও ন্যায় নীতিবান আদর্শিক রাজনীতিবিদ, কসবা আখাউড়ার গর্ব স্বনামধন্য রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইন বিচার ও সংসদবিষয়ক মাননীয় মন্ত্রী, কসবা আখাউড়ার স্থানীয় সংসদ সদস্য জনাব আনিসুল হক মহোদয়ের আদর্শের অনুসারী ভক্ত অনুগত রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে উনার অর্জনগুলো তৃণমূলের নেতাকর্মীদের কর্মকাণ্ডের দ্বারা যেন ম্লান না হয় সে বিষয়ে সবাইকে সর্তকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করার জন্য আহ্বান করি। এ প্রসঙ্গে আমি আরো বলি, আমি ব্যক্তিগতভাবে উনার প্রতি আমরণ গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞ থাকিব।
আমি ও বর্তমান সভাপতি একই গাড়িতে কসবা চাকরিজীবীদের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে যোগদানের উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে কথার প্রেক্ষিতে বর্তমান সভাপতি আক্ষেপ করে কিছু কথা বলেন। তিনি বলেন যে মন্ত্রী মহোদয় নিঃস্বার্থ ও বিনা পয়সায় যাদের চাকরি দিয়েছে তাদের বেশ কয়েকজনের সাথে চাকরিজীবীদের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য আমি অনুরোধ করলে তারা প্রতি উত্তরে বলেন মন্ত্রী মহোদয় চাকরি দিয়েছে কিন্তু আমরা বিনা টাকায় চাকরি পাই নাই। এবং তাদের অধিকাংশ আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী পরিবারের বাইরের সদস্য। সভাপতি সাহেব বিস্ময় প্রকাশ করেন এটা কি করে সম্ভব হল? এবং কে বা কাহারা টাকা নিল? এগুলো যথাযথভাবে তদন্ত করে বের করা হলে দলের জন্য কল্যাণকর হবে।

আর আমার বিরুদ্ধে ভুমিহীনদের আশ্রয়ন প্রকল্পের বিষয়ে যে দূর্নীতির কথা বলা হয়েছে তারও কোন ভিত্তি নেই। কারণ হচ্ছে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি হচ্ছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেখানে তো প্রটৌকল অনুযায়ী আমি উপজেলা চেয়ারম্যান সদস্য হওয়ার কোন নিয়ম নেই আর সদস্য হওয়ার প্রশ্নই আসে না। সদস্য হচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গন। আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আমার হাতের মধ্য দিয়ে কোন লেনদেন হয়নি তাহলে আমি টাকা আত্মসাৎ করবো কিভাবে?

আশ্রয়ন প্রকল্পের বাস্তবায়ন কমিটিতে উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ কাশেম ভুইয়া সদস্য কি না জানতে চেয়ে থানা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা আক্তার কে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

আখাউড়া আশ্রয়ন প্রকল্পে দূর্নীতির বিষয়ে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ শাহগীর আলম। উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ কাশেম ভুইয়া এই আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজে কোন ধরনের দূর্নীতির সাথে জড়িত কি না এই প্রশ্ন করে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ শাহগীর আলম বলেন, আমরা বিষয়টি তদন্ত করে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিয়ে দিয়েছি। তিনি আরো বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ কাশেম ভুইয়া এই আশ্রয়ন প্রকল্পের কোন দূর্নীতি তে জড়িত আছেন কি না সে টা আমাদের জানা নেই।

Tepantor

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।