Tepantor

জাল “নিকাহনামা” দিয়ে মামলা করে টাকা দাবীর অভিযোগ

২১ জুন, ২০২২ : ৭:৩৭ অপরাহ্ণ ৭০২
ছবি: কাজী ওয়াদুদ

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে জাল “নিকাহনামা” তৈরি করে এক ব্যক্তিকে মিথ্যা নারী নির্যাতনের মামলা করে চার লক্ষ টাকা দাবী করার অভিযোগ উঠেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরের খাটিংগা গ্রামের আলফু মিয়ার মেয়ে শাহিনুর আক্তারের মা গত ০৯ মার্চ আদালতে এই মামলাটি করেন তার মেয়ের জামাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের ফুলবাড়িয়া এলাকার খোরশেদ মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়ার (৩৫) বিরুদ্ধে। এঘটনার পর জাল নিকাহনামা দিয়ে মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলার করার দায়ে স্বামী সোহেল তার স্ত্রী শাহিনুর আক্তার ও বিয়ের কাজীর বিরুদ্ধে ২০ জুন আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। শাহিনুর ও কাজী ওয়াদুদের বাড়ি উপজেলার পাহাড়পুর ইউনিয়নের খাটিংগা গ্রামে। এই মামলার মাধ্যমে সোহেল ও তার পরিবারকে কাজীর সহযোগীতায় হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ।

দুই পক্ষের মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, সোহেল ও শাহিনুরের মধ্যে ২০২১ সালের জুলাই মাসের ২৭ তারিখে বিয়ে হয়। এরপর ২০২২ সালের জানুয়রি মাসের ২৬ তারিখের সোহেল ও শাহিনুরের আরেকটি কাবিন পাওয়া যায় যেখানে পাত্রীর জন্ম তারিখ, বিবাহের দিন তারিখ ধার্যের দিন তারিখ ও বিবাহ রেজিস্ট্রি হওয়ার তারিখ ভুল। অর্থাৎ, প্রথম কাবিনের সাথে দ্বিতীয় কাবিনের এই তথ্যগুলোর কোন মিল নেই।

স্বামী সোহেল বলছেন, ২০২২ সালের নিকাহনামা জাল। আর এই জাল নিকাহনামা দিয়েই মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার রেজিস্ট্রি বহি নং ৩০, পৃষ্ঠা নং ৯১/২২, তারিখ ২৬-০১-২০২২। আর প্রথম নিকাহনামার বহি নং হলো ৩০, পৃষ্ঠা ৯১/২১, তারিখ ২৬-০৭-২০২১।

সোহেলের দাবী, শেষের কাবিনে চার লক্ষ টাকা দেনমোহর থাকায় তার স্ত্রী ও কাজীসহ অন্যান্য অভিযুক্তরা চার লক্ষ টাকা দাবী করছেন, আর তা না হলে জেলে পচিয়ে মারবে সোহেলকে। তাছাড়া বিয়ে যদি ২০২২ সালে হয় তাহলে আগের কাবিনটা আসলো কোথা থেকে এটি একটি প্রশ্ন? তারা একটি চক্র।

এদিকে সোহেলের দায়ের করা মামলায় তার স্ত্রী শাহিনুর, কাজী ওয়াদুদ সহ চার জনকে আসামী করা হয়েছে। গত ২০ জুন এই মামলা করার পর থেকেই কাজী ওয়াদুদ ও স্ত্রী শাহিনুর সোহেলকে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। মামলা উঠিয়ে না নিলে সোহেলের সাথে লড়ার জন্য এক কোটি টাকা বাজেট করেছেন বলেও কাজী ওয়াদুদ হুমকি দিয়েছেন সোহেলকে।

দুইটি নিকাহনামা যাচাই করে দেখা যায়, ২০২২ সালের যেই নিকাহনামা দিয়ে শাহিনুর মামলা করেছেন সেটাতে বিয়ের দিন ধার্যের তারিখ রি-রাইটিং করা। এই নিকাহনামাটিতে বিয়ে রেজিস্ট্রি তারিখ ২৬-০১-২০২২ হলেও বিয়ের তারিখ ধার্য করার জায়গায় প্রথমে লিখা হয়েছিলো ২১-০৭-২০২২। পরে এই তারিখের উপর পুনরায় লিখা হয়েছে ২৬-০১-২০২২।

এবিষয়ে বক্তব্য জানতে কাজী ওয়াদুদকে ফোন করা হলে তিনি উত্তেজিত হয়ে প্রতিবেদকের সাথে দূর্ব্যবহার করেন। পরবর্তীতে আরেকজন প্রতিবেদক ফোন করে কাজীর নিবন্ধন নম্বর জানতে চাইলে তিনি তার নিবন্ধন নম্বর বলতে পারেননি।

এসকে

Tepantor

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।