Tepantor

গভীর রাতে বিধবার ঘরে পুলিশ, টাকা ও চেইন নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ : ৬:৩৯ অপরাহ্ণ ৩৩৯
বাম দিকে এসআই শাহেদ ও ডানে ভুক্তভোগী সুহেদা

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের শরীফপুর গ্রামে রাত দুইটায় এক বিধবার ঘরে টুকে মাদক ব্যবসার অভিযোগ তুলে নগদ পাঁচ হাজার টাকা ও গলার চেইন নিয়ে গেছে পুলিশ, এমন অভিযোগ ভুক্তভোগী নারীর। গত ২৩ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে শরীফপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ওই মহিলা শরীফপুর দক্ষিণ পাড়ার মৃত আব্দুর রউফ মাস্টারের স্ত্রী। তিনি ছোট ছোট তিন সন্তান নিয়ে ওই বাড়িতে বসবাস করেন।

আব্দুর রউফ মাস্টারের স্ত্রী ভুক্তভোগী নারী সুহেদা বলেন, শুক্রবার রাত ২টায় হঠাৎ আমার দরজায় এসে জোরে জোরে ধাক্কাতে থাকে একদল লোক। আমি ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে দরজা খোলার পর দেখি তারা সবাই পুলিশ। তখন তারা ঘরে ঢুকে আমাকে বলছে আমি নাকি মাদক ব্যবসা করি। একথা বলার পর ঘরের সমস্ত আসবাবপত্র উলট-পালট করতে থাকে পুলিশ। আমি মাদক ব্যবসা করিনা জানালে তারা নিজেদের পকেট থেকে কিসের যেন ছোট ছোট দুইটা পুটলা বের করে বলে এইযে মাদক পেয়েছি। তখন এই পুটলা তাদের পকেট থেকে বের করায় আমি এর প্রতিবাদ করি। তখন পুলিশ বলে আস্তে কথা বলো। পরবর্তীতে ঘটনাস্থলে স্থানীয় এক মেম্বারের মাধ্যমে ৫ হাজার টাকা পুলিশ আমার কাছ থেকে নেয় এবং একই সাথে আমার গলার একটি চেইনও পুলিশ নিয়ে নেয়। ওই পুলিশের দলের নেতৃত্বে ছিলেন এসআই শাহেদ। তারা যাবার সময় বলে গেছে আমি যেন কাউকে বিষয়টি না বলি।

এবিষয়ে এসআই শাহেদের কাছে বিষটি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

এবিষয়ে আশুগঞ্জ থানার ওসি আজাদ রহমান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই, এলাকার কোন ব্যক্তি ও ভুক্তভোগী কেউই আমাকে বিষয়টি জানাননি।

Tepantor

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।