Tepantor

ফাসানোর জন্য যেভাবে হাসপাতালের নকল টিকেট তৈরি করে বিজয়নগরের শানু

২১ নভেম্বর, ২০২২ : ৬:৪২ অপরাহ্ণ ৩৫৩
ছবি: শানু মিয়া ও ভূয়া টিকেট

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে ১৪ বছরের এক শিশুর বিরুদ্ধে দেড় বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ৯ নভেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আদালতে মামলা করেন মেয়েটির বাবা বিজয়নগরের আব্দুল্লাহপুর গ্রামর শানু মিয়া। কিন্তু দেখা গেলো, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের যেই টিকিট দিয়ে শিশু মেয়েটিকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে সেই টিকেটটিই ভূয়া। তেপান্তরে এবিষয়ে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর সম্প্রতি বিজয়নগরের সাতগাও গ্রামের মৃত রহম আলীর ছেলে লোকমান এবিষয়ে গোপন তথ্যটি ফাস করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, বুল্লা গ্রামের এক ব্যক্তি যে কিনা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে আগে চাকরি করতেন, তার এক ছেলে মেয়ে শিশুটির বাবা শানু মিয়াকে চায়ের দোকানে বসে এই টিকেটটি জালিয়াতি করে তৈরি করে দেন। পরবর্তীতে এই টিকেট ব্যবহার করে বিজয়নগর উপজেলার আব্দুল্লাহপুর গ্রামের তহিদ মিয়ার ছেলে আশরাফুল ইসলাম (১৪), তার বাবা তহিদ মিয়া ও মা সুবেরা বেগমকে আসামী করে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আদালতে। এর ফলে ১৪ বছরের কিশোর আশরাফুল পুলিশের ভয়ে মানসিক রোগী হয়ে যাচ্ছিলো। পুলিশি আতঙ্কে রাতের বেলা বাড়িতে থাকতোনা আশরাফুল। পরে তাকে তার বাবা বাড়িতে বেধে রেখে বাড়িতে থাকতে বাধ্য করেছিলো, যা পরবর্তীতে পুলিশ এসে তাকে বেধে রাখা জীবন থেকে উদ্ধার করে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছিলো, শানুর মেয়ে ১৭ মাস বয়সী মেয়েকে তহিদ মিয়ার পুত্র ১৪ বছরের আশরাফুল ধর্ষণ চেষ্টা করে, এবং এই ঘটনায় আহত হওয়ায় শানুর মেয়েকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। অথচ বাস্তবে ঘটনার চার দিন পর হাসপাতালের বাইরে চায়ের দোকানে বসে বুল্লা গ্রামের জনৈক ব্যক্তির সহযোগীতায় ভূয়া চিকিৎসার টিকেট তৈরি করে মামলা করেন শানু মিয়া।

এবিষয়ে আশরাফুলের বাবা তহিদ মিয়া বলেন, যারা হাসপাতালের জাল টিকেট তৈরি করে আমার ছেলেকে ধর্ষক বানাতে চেয়েছিলো ও আমার পরিবারকে ফাসাতে চেয়েছে আমি তাদের সবার বিচার চাই। এবং এই টিকেট জালিয়াতির সাথে যারা জরিত তা তদন্ত করে বের করার জন্য আমি প্রশাসনের কাছে অচিরেই আবেদন করবো।

Tepantor

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।