Tepantor

নবীনগরে ড্রেজারে ভাঙ্গছে গ্রাম, রক্ষায় ব্যবস্থা নেই

৮ এপ্রিল, ২০২৪ : ১:২৭ অপরাহ্ণ

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের বড়িকান্দি, নূরজাহানপুর, সোনাবালুয়া ও ধরাভাঙা এলাকায় ড্রেজার ভাঙ্গছে গ্রাম, বারবার অভিযোগ ও মানববন্ধনে নেই কোন প্রতিকার। নদী ভাঙ্গনে বিলিনের পথে থাকা একাধিক গ্রামের মানুষ গত কয়েক মাসে ধরে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। যে কোন সময় ঘটতে পারে অপ্রীতিকর ঘটনা।

স্থানীয় এমপি ফয়জুর রহমান বাদল ও প্রশাসনের একাধিক অভিযান ও প্রচেষ্টায়ও থামছে না অবাধে বালু মহালের ড্রেজিং। এতে নদী তীরবর্তী গ্রামবাসীবাসীদের মাঝে বাড়ছে ক্ষোভ! গত ফেব্রুয়ারি মাসের ২ তারিখে জজ কোর্টের শিক্ষানবিশ আইনজীবী গোলাম কিবরিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক বরাবর বালু মহাল নিয়ে অভিযোগ করার পর একাধিকবার স্থানিয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কাছেও অভিযোগ করার পর অনৈতিকভাবে ড্রেজিং করার দায়ে একাধিক ড্রেজারকর্মীকে জেল-জরিমানা করা হয়েছে। তবু থামছে না বালু মহালের ড্রেজিং, ভাঙ্গছে একের পর এক গ্রাম। এদিকে ৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত নদী রক্ষা বাধঁটিও হুমকির মুখে। কোথাও কোথাও বাধঁটি ভেঙ্গে ভাঙ্গছে গ্রাম। ফসলি জমি ও বসত-ভিটা হারিয়ে নিঃস্ব হচ্ছেন স্থানীয় গ্রামবাসী।

জানা যায়, গত ১৭ মার্চ জাতীয় শিশু দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকীতে উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে সাবেক জেলা পরিষদ সদস্য অধ্যাপক নুরুন্নাহার বেগম স্থানিয় এমপি ফয়জুর রহমান বাদলের কাছে ভুক্তভোগী গ্রামবাসীদের নিয়ে অভিযোগ করেন। এ সময় এমপি প্রয়োজনে বালু মহালের বালু মহালের ইজারা বাতিলসহ নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা রক্ষার্থে কাজ করবেন বলে আশ্বস্ত করেন। এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা পুলিশ প্রশাসনের নবীনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মোঃ মাহাবুব আলম বলেন, পুলিশ প্রশাসনের সদস্যরা এ বিষয়ে সদা সর্তক, কেউ যেনো অবৈধভাবে কোন কিছু করতে না পারে সেজন্য তারা অভিযান পরিচালনা করে আসছেন।

গত ২২ মার্চ সকালে গ্রামবাসীরা বালু মহালের ইজারা বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন।

অধ্যাপক নুরুন্নাহার বলেন, দ্রুত বালু মহালের ইজারা বন্ধ করে ভাঙ্গনের কবলে পড়া ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসীকে ক্ষতিপূরন দেয়া হউক।

আইনজীবী গোলাম কিবরিয়া বলেন, ঘর-বাড়ি হারিয়ে দিশেহারা গ্রামবাসী। কেন এভাবে মানুষের ক্ষতি করে বালু মহাল ইজারা দেয়া হল তা খতিয়ে দেখে দ্রুত সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হউক।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভনের মালিকানাধীন মুন্সি এন্টারপ্রাইজ এই ইজারা পেয়েছে।

Tepantor

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।