জানুয়ারিতে পাসপোর্টের ফটোকপি দিয়ে নতুন পাসপোর্ট পাবে লেবানন প্রবাসীরা

২০ ডিসেম্বর, ২০১৯ : ৮:০৬ অপরাহ্ণ ২১৫

মনির হোসেন,লেবানন: জানুয়ারিতে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) এর ফটোকপি দিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে নতুন পাসপোর্ট করার সুযোগ পেতে যাচ্ছে লেবানন প্রবাসীরা। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত আলোচনা সভায় লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার এমনটি জানান। তিনি জানান,অবৈধ প্রবাসীদেরকে বৈধ করনে লেবাননের উচ্চ পর্যায়ে সব মহলের সাথে এ বিষয়ের আলোচনা অব্যাহত রয়েছে। লেবাননের বর্তমান রাজনৈতিক অচলাবস্থার সুরাহা হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট বিলটি সংসদে অনুমোদিত হলেই বৈধকরণের কাজ শুরু করা যাবে। সেই লক্ষে যাদের হাতে পাসপোর্ট নেই তাদের জন্য পাসপোর্টের ফটোকপি দিয়ে নতুন পাসপোর্ট করার সুযোগ দেয়া হবে যাতে সর্বাধিক সংখ্যক প্রবাসী বৈধ হওয়ার সুযোগ গ্রহন করতে পারে। রাষ্ট্রদূত বলেন, লেবাননে সরকারী বিভিন্ন দপ্তর, পাশাপাশি ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন ও মানিগ্রামের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে লিবান পোষ্ট (লেবাননের পোস্ট অফিস) এর মাধ্যমে লেবানিজ মুদ্রাকে সুলভ মূল্যে ডলারে রুপান্তরিত করে টাকা পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। একবার ৩০০ ডলার করে একাধিক বার টাকা পাঠানো যাবে। ডিসেম্বর মাস জুড়ে বাংলাদেশী প্রবাসীরা এই সুযোগ পাবেন বলে আশা করা যাচ্ছে। চেষ্টা করা হচ্ছে লেবাননের চলমান রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত যেন এ ব্যবস্থা অব্যাহত রাখা যায়। লেবাননের বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষিতে বসে না থেকে দ্রুত দেশে টাকা পাঠানোর জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, লেবাননে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সঠিক সংখ্যা নির্নয় করতে প্রবাসীদের দূতাবাসের নিবন্ধনের আওতায় আনা হবে যেন যেকোন জরুরি অবস্থায় তাদের সাথে সহজে যোগাযোগ করা যায়। বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচির আয়োজন করে দূতাবাস। সোমবার দিনটির প্রথম প্রহরে সকাল ৯টায় দূতাবাস ভবনের ছাদে জাতীয় সংগীত বাজিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন রাষ্ট্রদূত আবদুল মোতালেব সরকার। দ্বিতীয় পর্বে দূতাবাস হল রুমে দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রেরিত বাণী পাঠ করেন শোনানো হয়। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে বীর শহীদদের স্মরণে দাড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয় এবং বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। সভায় দেশের বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, দূতাবাস কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ, লেবানন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী, বাংলাদেশি কমিউনিটিসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হয় স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে নিহত তার পরিবারের সদস্য, জাতীয় চার নেতা, মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদ, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং সম্ভ্রম হারানো সকল মা বোনদের। সবশেষে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সকলকে দল মত নির্বিশেষে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করার আহবান জানানো হয়। এছাড়া আগামী বছর আড়ম্বরপূর্ণভাবে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষিকী পালনের মাধ্যমে লেবাননে বাংলাদেশকে তুলে ধরার লক্ষ্যে সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।