নবীনগরে সরকারী হাসপাতালের কর্মকর্তার সাথে অসদাচরণের জন্য ক্লিনিক মালিক আটক

২২ ডিসেম্বর, ২০১৯ : ১০:৫৩ অপরাহ্ণ ২৩৭

মোঃ সফর মিয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) ডা. হাবিবুর রহমানের সঙ্গে অসদাচরন ও সরকারি কাজে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগে রবিবার (২২/১২/১৯) দুপুরে লাইফ কেয়ার ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারের মালিক পাভেল আহম্মেদ (৪০)কে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আটককৃত ওই ক্লিনিক মালিকের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নিতে নবীনগর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
খোঁজ নিয়ে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, রবিবার দুপুর আনুমানিক দেড়টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডা. হাবিবুর রহমানের কক্ষে ঢুকে হাসপাতাল সড়কে অবস্থিত লাইফ কেয়ার ডায়গনস্টিক সেন্টারের মালিক পাভেল আহম্মেদ উচ্চ স্বরে কথা বলছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এক পর্যায়ে কর্তব্যরত ডা. হাবিবের সঙ্গে মারাত্মক দুর্ব্যবহার করেন ক্লিনিক মালিক পাভেল। এসময় ডা. হাবিব পুলিশে কল করলে, পুলিশ এসে পাভেলকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে সরকারি ওই হাসপাতালটিতে চিকিৎসা নিতে আসা সাধারণ রোগীদেরকে অনেকটা জোরপূর্বকভাবে স্থানীয় প্রাইভেট ক্লিনিকগুলোতে নানা কৌশলে একটি দালাল চক্র চিকিৎসার জন্য ধরে নিয়ে যায়। সূত্র জানায়, এর বিরুদ্ধে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রতিবাদ করায়, ক্ষুব্ধ হয়ে ক্লিনিক মালিক পাভেল হাসপাতাল প্রধানের সঙ্গে এসে মারাত্মক অশোভন আচরণ করেন।
এ বিষয়ে ডা. হাবিবুর রহমান বলেন,”থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পাশাপাশি হাসপাতালে দীর্ঘদিন ধরে দালাল চক্রের পুরো ঘটনা মাননীয় এমপি স্যারকেও তাৎক্ষণিকভাবে অবগত করেছি।”
নবীনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমীন এ বিষয়ে বলেন,‘সরকারি কাজে বাঁধা ও অশোভন আচরণের অভিযোগ এনে হাসপাতাল কতৃপক্ষ লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ইতিমধ্যে ক্লিনিক মালিক পাভেলকে আটক করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।’
স্থানীয় সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল বলেন,’বিষয়টি কঠোরভাবে দেখতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছি। সরকারি হাসপাতালের আশেপাশেও কোন দালালচক্রকে আর থাকতে দেয়া হবে না।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।