এবার কসবায় শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করে লাশ ফেলে গেলো বাশঝাড়ে

২৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ : ২:৫৮ অপরাহ্ণ ৩৩৪

তেপান্তর রিপোর্ট: মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে সরাইলের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়েছে কসবায়। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় নিখোঁজের পরের দিন জান্নাত আক্তার (১১) নামের এক স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সোমবার (২৩ ডিসেম্বর) বাশঝাড় থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ ধারণা করছে, ওই শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা করে বাঁশঝাড়ের ভেতরে ফেলে যায় দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
জান্নাত কসবার মন্দবাগ গ্রামের রফিক মিয়ার মেয়ে। সে ছিল পরিবারের বড় সন্তান। তার ছোট দুই ভাই আছে। সে স্থানীয় মন্দবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে পড়তো।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জান্নাত গত ২২ডিসেম্বর রোববার বিকেলে পুকুরে গোসল করতে যায়। বিকেল ৪টার পর থেকে তাকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। রাতে বিভিন্ন জায়গায় তাকে খোঁজা খোঁজি করেছে। সোমবার সকাল ৮টার দিকে জান্নাতের মা পুতুল আক্তার তাদের বাড়ির উত্তর-পশ্চিম দিকে একটি বাঁশঝাড়ের ভেতর মেয়েকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পান।

খবর পেয়ে কসবা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে ময়দতন্তের জন্য প্রেরণ করেন। কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ১৬ ডিসেম্বর সরাইলে একই কায়দায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী জয়নবকে ধর্ষণের পর হত্যা করে পাশের বাঁশের ঝাড়ে ফেলে পালিয়ে যায় হত্যাকারী। যদিও পুলিশ সেই হত্যাকারিকে দ্রুতই গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।