কসবায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের গাড়িবহরে হামলা ,ইউএনওসহ ৪ পুলিশ আহত,গুলিবর্ষন

২৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ : ৫:৪৪ অপরাহ্ণ ৭৪০

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় দণ্ডিত সাবেক যুবলীগ নেতা ও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যকে ছিনিয়ে নিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের গাড়িবহরে হামলা হয়েছে। এতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ (ইউএনও) চার পুলিশ আহত হয়েছেন। রবিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার পশ্চিম ইউনিয়নের বিলঘর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতরা হলেন, কসবার ইউএনও মাসুদউল আলম, কসবা থানার এসআই মো. হারুনুর রশিদ, পুলিশের নায়ের আলী আজম, কনস্টেবল মাহবুবুল, জয়রুপ। ঘটনার পর থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।

এর আগে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগে কসবা পশ্চিম ইউনিয়নের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. আলমগীরকে আটক করে। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রশান্ত বৈদ্য ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে আলমগীরকে এক বছরের কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাসুদউল আলম জানান, ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ঘটনায় পাঁচ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে কসবার বিভিন্ন এলাকায় পৃথক অভিযান চালানো হয়। এমন সময় কসবা পশ্চিম ইউনিয়নের বাসিন্দা আলমগীরসহ দুই জনকে আটক করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত আলমগীরকে সাজা দিয়ে থানায় নিয়ে আসতে থাকে। এমন অবস্থায় বিলঘর এলাকায় পৌঁছালে এই হামলা হয়। আলমগীরকে ছাড়িয়ে নিতে এই হামলা হয় বলে তিনি অভিযোগ করেন।

কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. লোকমান হোসেন জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে ১০ রাউন্ড গুলি ছুড়তে হয়। এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদেরকে গ্রেপ্তারেরও চেষ্টা চলছে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।