মালয়েশিয়ায় ইন্দোনেশিয়ার দুর্বৃত্তের হাতে বাংলাদেশী নির্মাণ শ্রমিক খুন,আটক ১০

২৫ জানুয়ারি, ২০২০ : ৬:৪৬ অপরাহ্ণ ২৫৭

আশরাফুল মামুন: মালয়েশিয়ায় কর্মরত এক বাংলাদেশি নির্মাণ শ্রমিক কে ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক কর্তৃক কুপিয়ে নির্মমভাবে খুন করার খবর পাওয়া গেছে । এ ঘটনায় সন্দেহভাজন দশ জন কে আটক করেছে পুলিশ।
নিহত ব্যক্তির নাম মো: মকবুল হোসেন (২৮) , তার পাসপোর্ট নম্বর- BLO649839,
সে সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ উপজেলার বড়পাকুরিয়া গ্রামের মোহাম্মদ খলিলুর রহমানের পুত্র। জানা গেছে নিহত মকবুল হোসেন এর লাশ গত ১১ই জানুয়ারি স্থানীয় পুলিশ (kajang) কাঁজাং নামক এলাকা থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে মর্গে পাঠায়। কিন্তু লাশের সাথে কোন ডকুমেন্টস না থাকায় পুলিশ তার পরিচয় নিশ্চিত করতে না পারায় তার খুনের ঘটনা সহকর্মী ও পরিবার জানতে পারেনি এতদিন। সে দীর্ঘদিন নিখোঁজ থাকার পর আজ তার সহকর্মীরা তার লাশ সনাক্ত করে পরিচয় নিশ্চিত করে বিস্তারিত তথ্য দূতাবাসে জমা দেওয়া দেন । তার মৃত্যুর খবর গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। নিহত মকবুল হোসেনের স্ত্রী ও এক ছেলে সন্তান রয়েছে। সে(valo) ভলো এন্টারপ্রাইজ নামে একটি কনস্ট্রাকশন কোম্পানির অধীনে ভিসা নিয়ে কাজ করতেন।
তবে কি কারণে দুর্বত্তরা তাকে নির্মম ভাবে খুন করেছে তাৎক্ষণিকভাবে বিস্তারিত জানা যায়নি।

এ ব্যাপারে তার সহকর্মী মোহাম্মদ হাসান প্রতিবেদক কে বলেন, আমরা ধারণা করছি কাজ নিয়ে দ্বন্দ্বের কারণে তাকে ইন্দোনেশিয়ান শ্রমিকেরা কুপিয়ে হত্যা করতে পারে। এ ঘটনায় পুলিশ সন্দেহভাজন ১০ ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক কে আটক করেছে। মকবুল হোসেন নিখোঁজ ছিল ,আমরা এতদিন জানতে পারিনি সে খুন হয়েছে গত ২৩ তারিখে আমরা পুলিশের মাধ্যমে জানতে পারি তার মৃতদেহ কাজাং হাসপাতলে আছে। তিনি আরো বলেন,তার পরিবার গরিব অসহায় তারা খুব কান্নাকাটি করছে এবং অনুরোধ করছে তার লাশটা দেশে দ্রুত।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) জনাব হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল প্রতিবেদক কে জানান, আমরা আজ কে নিহত মকবুল হোসেন এর ব্যাপারে যাবতীয় তথ্য পেয়েছি , এই বিষয়ে সার্বিক খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছি। তিনি আরও বলেন, তার সহকর্মী ও পরিবারকে জানিয়ে দিন দূতাবাস সার্বিক বিষয়টি দেখছে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।