এমপি’র হুকুম শুনেনি যুবলীগ নেতা

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ : ১০:৪৯ অপরাহ্ণ ১৮২৮

তেপান্তর রিপোর্ট: ৬দিন পেরুলেও এমপি’র হুকুমের তোয়াক্কা নেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ও সুহিলপুর ইউপি সদস্য মহসীন মিয়ার। শহরতলীর ঘাটুরায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ওপর তার বানানো তোরনটি রয়েছে একইভাবে। ১লা ফেব্রুয়ারী তাকে ডেকে এনে তোরনটি খুলে ফেলার নির্দেশ দেন সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। এসময় এমপি’র পায়ে পড়ে কাদতে শুরু করে সে। ওইদিন ইউনির্ভাসিটি অব ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চেয়ারম্যানের কার্যালয় তথা মোকতাদির চৌধুরীর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এসময় জেলা ও সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ২/১জন নেতা তার পক্ষ নিয়ে কথা বলতে চাইলে মোকতাদির চৌধুরী তাদেরকেও ২/১ কথা শুনিয়ে দেন। সদর উপজেলার এক নেতা মহসীনের পক্ষ নিয়ে কথা বললে সংসদ সদস্য ওই নেতাকে বলেন তার কাছ থেকে এক প্যাকেট সিগারেট পেয়েছেন নাকি। মহসীনের বিরুদ্ধে রয়েছে বিস্তর অভিযোগ। চোরাই গ্যাস সংযোগের হোতা বলেই জানে সবাই তাকে। অন্যের জায়গা-সম্পত্তি জোরে দখলের অনেক অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে। তার অত্যাচারে অতিষ্ট ঘাটুরার মানুষ। সম্প্রতি সে তার আপন চাচী সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী ও ইউপি সদস্য আনোয়ারা বেগম ও তার ছেলেকে বেদম মারধোর করে হাসপাতালে পাঠায়। দখল করে নেয় তার বাড়ির জায়গা।

নানা অপকর্ম করে বেড়ানো এই মহসীন ঘাটুরায় একটি স্থায়ী তোরন নির্মান করে বিভিন্ন উৎসবে এমপি’র পক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। তোরনে এমপি’র ছবি এবং তার ছবি ব্যবহার করছে। স্থানীয় লোকজন জানান, এই তোরনের মাধ্যমে সে এলাকার মানুষ ও গ্যাস অফিসে নিজের প্রভাব-প্রতিপত্তি জানান দেয়। তোরনটি হচ্ছে তার প্রভাব খাটানোর অস্ত্র। এমপি তার ঘনিষ্ট এটিই বুঝাতে চায় সে। এতে এমপি’র ইমেজও ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে জানান এলাকার অনেকেই। এদিকে এই তোরনের কারনে গাড়ি চলাচলও বিঘ্নিত হয় মহাসড়কে। ক’দিন আগে একটি ট্রাক তোরনে ধাক্কা দেয়ায় সে জরিমানাও আদায় করে জোর করে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।