লেবাননে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সংবর্ধনা প্রবাসী বাংলাদেশীদের

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ : ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ ১০৪৮

মনির হোসেন রাসেল,লেবানন প্রতিনিধি::সাড়ে চার বছর দায়িত্ব পালন শেষে দেশে ফিরে যাচ্ছেন “প্রবাসী বান্ধব” উপাধি পাওয়া রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার। এ উপলক্ষে রাষ্ট্রদূতকে বিদায় জানাতে এক বিশাল গন সংবধর্নার আয়োজন করেছে লেবানন প্রবাসী বাংলাদেশ কমিউনিটি।গতকাল রবিবার বৈরুতে আল কোলায় “হোটেল রেষ্ট প্যালেসে” স্থানীয় সময় সকাল ১১ টায় পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মধ্য এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়। পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত করেন, হাফেজ মতিউর রহমান।

লেবাননের কমিউনিটি নেতা মশিউর রহমান টিটুর পরিচলনায় ও আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,দুতাবাসের প্রধান শ্রম সচিব আব্দুল্লাহ্ আল মামুন,দূতাবাসের তৃতীয় সচিব আব্দুল আল সাফি। ইসলামী সমাজ কল্যাণ সংগঠনের সভাপতি আব্দুল মতিন। সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার ইমাম হোসেন মিলন। আমেরিকান ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক ইয়াজ উদ্দিন আহম্মদ।

রাষ্ট্রদূত এসময় বলেন, বিগত সাড়ে চার বছরের আপনাদের মাঝে এখানে অনেক বক্তব্য রেখেছি। আজ শেষ বারের মত আমি আপনাদের মাঝে হাজির হয়েছি। শেষ মূহুর্তে হলেও আপনাদের সবাই কে একত্রিত দেখে আমি খুবই আনন্দিত ও গর্বিত। আজকে সবাই আমাকে সম্মান দেখিয়েছেন সেটা আমি কোনদিন ভুলতে পারবনা। আমি সর্বাত্নক চেষ্টা করেছি আপনাদের সেবা দিতে সঠিক জানিনা কতটুকু সেবা আমি দিতে পেরেছি। মানব সেবা করা সবার ভাগ্যে জুটে না আল্লাহ অশেষ মেহেরবানী আমি এ সুযোগটা পেয়েছিলাম। আমি সবর্দা চেষ্টা করেছি আপনাদের সমস্যা সমাধানের কিন্তু জানিনা সফল হতে পেরেছি কিনা। প্রতিদিন আমি কমপক্ষে একজনকে সাহায্যে করার টার্গেট করে থাকি কারণ প্রতিদিন একজন করে সাহায্য করতে পারলে মাসে ৩০ জনকে ও বছরে ৩৬৫ জনকে সেবা দিতে সক্ষম হব।

পরিশেষে প্রবাসীদের প্রতি অনুরোধ করে বলেন, আপনারা অপরাধমূলক কাজ থেকে বিরত থেকে দেশের সম্মানটুকু অক্ষুন রাখবেন। আমি আপনাদের জন্য দোয়া করি মহান আল্লাহতালা কাছে যেন সর্বদা ভালো রাখেন। আপনারাও আমার জন্য ও আমার পরিবারের জন্য দোয়া করবেন। দীর্ঘ সাড়ে বছরের দায়িত্ব পালনকালে আমি যদি কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকি আমাকে ক্ষমা করে দিবেন।

এসময় অরো বক্তব্য রাখেন,কমিউনিটির প্রবীণ নেতা মুখ মানিক মোল্লা,কমিউনিটি নেতা রুবেল আহমেদ, আবদুল করিম,শরিফ খান,হাবিবুর রহমান,শামিম আহমেদ,আলমগীর ইসলাম, প্রবীণ কমিউনিটির নেত্রী সুফিয়া আক্তার বেবী,বাবুল মুন্সি, ইসলামী সমাজ কল্যাণ সংগঠনের সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার ইমাম হোসেন মিলন সাহেব’সহ অারো অনেক সংগঠনের নেত কর্মী।

কমিউনিটির নেতারা এসময় বলেন,রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকারের মত পৃথিবীর কোথাও আরেকটি রাষ্ট্রদূত খোঁজে পাওয়া যাবে না। লেবাননে এক লক্ষ ষাট হাজার প্রবাসী বাংলাদেশীর মাথার ছায়া ছিলেন রাষ্ট্রদূত। তিনি সর্বদা অসহায় প্রবাসী বাংলাদেশীদের অবিভাবকের মত সুখে-দুঃখে পাশে ছিলেন। লেবানিজদের কাছে বাংলাদেশকে পরিচিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। যদিও বাংলাদেশকে লেবার সাপ্লায়ার দেশ হিসেবে জানতেন লেবানিজরা। তিনি যোগদানের পর বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ে সভা সমাবেশের মাধ্যমে ও সামাজিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে লেবানিজ বুঝাতে সক্ষম হন বাংলাদেশ শুধু লেবার সাপ্লায়ার দেশ না।

তারা আরও বলেন, তিনি দায়িত্ব পালনকালে সততা, নীতি ও আর্দশে ছিলেন অটল এবং অন্যায়রে বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে ছিলেন সবসময়। অসাধু দালালদের কঠোর হাতে দমন করা ছাড়া তাদের কাছে কোনদিন আপোষ করেন নাই। তিনি আসার আগে যেখানে দুই হাজার মার্কিন ডলার লাগতো একটি লাশ প্রেরণ করতে সেখানে বিনা খরচে এবং অতি কম সময়ে মৃত দেহ দেশে প্রেরণ করতে সক্ষম হন তিনি। সকল প্রবাসীদের রবিবার ছুটি আছে কিন্তু সাড়ে চার বছর দায়িত্ব পালন কালে রবিবারেও ছুটি বা রেষ্টের প্রয়োজন মনে করেননি এই প্রবাসী বান্দব রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার।

লেবানন প্রবাসীদের পক্ষ থেকে সম্মাননা মানপত্র প্রদান করা হয় সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন থেকে ক্রেষ্ট প্রদান করা হয় এবং মানপত্র পাট করে শোনান প্রবীন নেতা, মশিউর রহমান টিটু ।

এসময়লেবানন দায়িত্ব থাকা বিভিন্ন ইলেকট্রনিকস মিডিয়া, প্রিন্ট মিডিয়া,সাংবাদিকবৃন্দ ও দূতাবাসের কর্মকর্তারা সহ বিপুলসংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী উপস্থিত ছিলেন।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।