বিজয়নগর: ধরলো পুলিশ,ছাড়লো ইউএনও

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ : ৭:০৯ অপরাহ্ণ ২০৭১

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে ইউএনও মুক্তি দিয়েছেন ৪ মাদকসেবীকে। জরিমানা করে ছেড়ে দেয়া হয়েছে তাদেরকে। উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইয়াকুব মিয়ার ছেলে জুয়েলকে(৩৭) সোমবার সন্ধ্যায় ইয়াবাসহ আটক করে পুলিশ। ওই ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান রতনেরও আত্বীয় সে। পুলিশ জানায়- ওইদিন সন্ধ্যায় মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনার সময় নোয়াগাওয়ের মোড়ে পুলিশ মোটরসাইকেল আরোহী জুয়েলকে গাড়ি থামানোর সিগন্যাল দেয়। সিগন্যাল অমান্য করে সে চলে যেতে থাকলে পুলিশ তাকে আটক করে। পরে তার দেহতল্লাশী করে ৩ পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। বিজয়নগর থানার এ এস আই মোশাররফ হোসেন ও এ এস আই নাছির উদ্দীন এই অভিযানের নেতৃত্ব দেন।

জুয়েলকে ছাড়িয়ে নিতে তদবীর শুরু হয় আটকের পর থেকেই। এই তদবীর রক্ষায় গতকাল দুপুরে বিজয়নগর থানা পুলিশ জুয়েলসহ ৪ মাদকসেবীকে ভ্রাম্যমান আদালতের কাছে নিয়ে যায়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহের নিগার। তিনি ৪ জনকেই একহাজার টাকা করে জরিমানা করে ছেড়ে দেন ।

ইউএনও মেহের নিগার সাংবাদিকদের জানান, আটককৃতদের মাদকসহ তার সামনে আনা হয়নি। যাদের জরিমানা করা হয়েছে তাদের মধ্যে জুয়েল ছিলো কিনা সেটি তার জানা নেই।

তবে বিজয়নগর পুলিশের এক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেন জুয়েলের সঙ্গে পাওয়া ইয়াবাসহ-ই তাকে আদালতের সামনে পেশ করা হয়।

বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আতিকুর রহমান জানান- এবিষয়ে তার অফিসার বলতে পারবেন।
জরিমানাগুনে মুক্তি পাওয়া অন্য মাদসেবীরা হচ্ছে সরাইলের কুট্টাপাড়ার মনির চৌধুরী(৪০),ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের কোড্ডার বিজয় ভূইয়া(২৭) ও শিমুল ভূইয়া(২২)।

এদিকে ইউএনও’র সঙ্গে এনিয়ে সাংবাদিকরা কথা বলার এক ঘন্টা পর বিজয়নগর উপজেলার স্থানীয় এক সাংবাদিক ফোন করে এ ব্যাপারে ইউএনওকে ছাড় দিতে অনুরোধ করেন।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।