আখাউড়ায় মাদক সেবন করতে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ শিক্ষার্থী জেল হাজতে

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ : ৯:২৫ অপরাহ্ণ ৪৪৪

আশরাফুল মামুন:আখাউড়ায় মাদক সেবন করতে এসে পুলিশের হাতে আটক হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ শিক্ষার্থী। জানা গেছে গেলো রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অত্র পৌরশহরের খরমপুর মাজার কমপ্লেক্স এলাকায় খান রেষ্ট হাউস থেকে আখাউড়া থানা পুলিশ তাদেরকে আটক করে। আজ ২৫ শে ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এসময় তাদের ব্যবহৃত ৮টি দামি মোটর বাইক ও মোবাইল ফোন জব্দ করে পুলিশ। থানা পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, আটককৃতরা ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী। তারা মাদক সেবন করতে আখাউড়ায় আসে। এ সময় পুলিশ আরো জানায়,অত্র উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের মাদক বিক্রেতা উমরান (২৩) কে রামধনগর এলাকা থেকে সোমবার বিকালে আটক করে পুলিশ। এসময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও জব্দ করে নেয় আখাউড়া থানার পুলিশ।

আটককৃতরা হলো- ঢাকার খিলগাওয়ের বাসিন্দা রুস্তম আলীর ছেলে ইমরান আলী, একই এলাকার বাসিন্দা এ্যাড. জুলহাস মিয়ার ছেলে আরিফ হোসেন, খিলগাও এলাকার পূর্ব গোড়ানের বাসিন্দা কামাল আহম্মেদের ছেলে সৌরভ আহম্মেদ, ওই এলাকার মজিবুর রহমানের ছেলে জাহিদুর রহমান, একই এলাকার আহসান উল্লার ছেলে শাফায়েত উল্লাহ হিমেল, আলকাস হাওলাদারের ছেলে সোহাগ হোসেন, কুতুব উদ্দিন খানের ছেলে মুরাদ খান, ওই এলাকার বাসিন্দা নূরুন্নবীর ছেলে মাহমুদুল হাসান, মতিঝিল থানার উত্তর কমলাপুর এলাকার বাসিন্দা মৃত গোলাম।

আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহমদ নিজামী জানান, জব্দকৃত উমরানের মোবাইলে বিভিন্ন ফোন আসতে থাকে। এসময় উমরান মনে করে অপর প্রান্ত থেকে একজন বলেন, ওই যে আমরা ঢাকার পার্টি। আমরা ১০ জন আছি। আমাদের অর্জিনাল ফেন্সিডিল লাগবে। কোথায় নিয়ে আসবো এমন প্রশ্নে’ তারা জানান, আমরা খরমপুর মাজারের খান রেস্ট হাউজে আছি। পরে আখাউড়া থানা পুলিশের একটি দল ছদ্মবেশে কৌশলে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।