করোনা পরিস্থিতি: অনাহারের মুখে খাবার দিচ্ছে শরীফপুরের যুবকরা

১ এপ্রিল, ২০২০ : ৩:১৮ অপরাহ্ণ ১১৪১

তেপান্তর রিপোর্ট: মহামারি করোনায় সারা দেশ যখন লকডাউন তখন স্বাভাবিক ভাবেই গরিব বা খেটে খাওয়া মানুষ পড়েছে সবচেয়ে বেশি বিপদে। এই বিপদে অসহায়দের সহযোগীতা করছে বিভিন্ন সংগঠন। এসব সংগঠন শুধু শহরের বাসিন্দাদেরই সহযোগীতা করে। গ্রামের মানুষদের দিকে তাদের নজর নেই বললেই চলে। অথচ শহরের তুলনায় গ্রামের সাধারণ মানুষের কষ্টও কোন অংশে কম নয়।

এই অবস্থায় জেলার আশুগঞ্জের শরীফপুর গ্রামের গরীব-অসহায়দের দিকে যখন খোদ এই গ্রামেরই অনেক সামর্থ্যভান ব্যক্তি বা অন্যান্য কেউ এগিয়ে আসছেনা তখনই এই মহান দায়ীত্ব নেন ওই গ্রামেরই কিছু যুবক। তারা “করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ ফান্ড শরীফপুর” নামে একটি গ্রুপ খোলে, যেখানে গ্রামের অনেক যুবক যোগ দেন। তারপর ওই গ্রামের প্রবাসীদের সাথে যোগাযোগ শুরু করেন তারা। একে একে সামর্থ্য অনুযায়ী কম-বেশি অনুদান আসতে থাকে। অনুদান দেন গ্রামের কিছু সংখ্যক সামর্থ্যভান ব্যক্তিও। তবে বেশিরভাগ সামর্থ্যভান ব্যক্তিরা এবিষয়ে নিশ্চুপ।

কিন্তু তবু আটকে থাকেনি মহান এই কর্মযজ্ঞ। এক দিনেই ফান্ডে এসে জমা হয় ৮০ হাজার টাকা। সেই টাকায় মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয় গ্রামের ৭৫ পরিবারকে। কিন্তু এরকম আরো অনেক গরীব পরিবার আছে যারা খেয়ে-না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে। তাই তাদের সাহায্য করতে আরো অনেক অর্থের প্রয়োজন।

যুবকদের একজন লোকমান হোসেন। তিনি তেপান্তরকে জানান, অনেক সামর্থ্যভান ব্যক্তি আশ্বাস দিয়েছেন অনুদান দেওয়ার। তারা সবাই যদি দেন তাহলে আর কোন সমস্যাই থাকবেনা। গ্রামের কোন গরীব না খেয়ে মরবেনা। দেশের এই সঙ্কটের মূহুর্তে সবার উচিৎ যার যার সামর্থ্যানুযায়ী সাহায্য করা।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।