নবীনগরে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞায় বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অবাধে চলাচল জনসাধারণের

৯ এপ্রিল, ২০২০ : ৮:২৫ অপরাহ্ণ ২৮৬



মোঃ সফর মিয়া,নবীনগর প্রতিনিধি:ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে পৌরসদরে জনতার ঢল থামাতে পারছেনা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি। নবীনগর পৌরসদরসহ গোটা উপজেলায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনির, পৌর মেয়র এড. শিব শংকর দাস, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম, নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ রনোজিত রায়, স্বশস্ত্র বাহিনী ও বিএনসিসি’র সদস্যসহ বাজারে বাজারে মাইক হাতে প্রচার প্রচারণাসহ কঠোর হয়েও দমাতে পারছে না সাধারণ মানুষের ঢল। এক্ষেত্রে উপজেলার সকল বাজার ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষের সহযোগিতা চেয়েছেন উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি ও উপজেলা প্রশাসন। সকাল ৬টা থেকে বেলা ২টা থেকে নবীনগর পৌরসদরের নবীনগর বড়বাজার, নবীনগর পশ্চিম পাড়া বাজার, নবীনগর করিমশাহ বাজার, নবীনগর আলীয়াবাদ বাজার, নবীনগর আলমনগর বাজার, নবীনগর ভোলাচং নতুনবাজার, ভোলাচং পুরাতন বাজার, নবীনগর গোপিনাথপুর বাজার প্রতিদিন পুরোদমে চলছে। এগুলো ছাড়াও নবীনগরের আনাচে কানাচে, অলিগলিতে অসংখ্য ছোট ছোট দোকান থাকা সত্বেও নবীনগর পৌরসদরে মানুষের ঢল থামাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি ও উপজেলা প্রশাসনসহ স্বশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের। উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের অক্লান্ত পরিশ্রমেও সাধারণ মানুষদের ঘরমুখী করা যাচ্ছে না।
সকাল ৬টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত ওইসব বাজারগুলোতে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আসা সাধারণ ক্রেতা-বিক্রেতাদের অসচেতন ও সামাজিক দূরত্ব না মানার কারণে করোনার ঝুঁকি বেড়েই চলছে। এক্ষেত্রে উপজেলা প্রশাসন নতুন কিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছেন, আগামীকাল থেকে নবীনগর বাজারের নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচা মালের বাজার (টিনশেডের ভিতর ব্যতীত) ফুটপাতের সকল দোকান, বড় বাজারের বাহিরের সকল ফলের দোকান স্থানান্তর হয়ে নবীনগর সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বসবে। প্রশাসন এবং বাজার ব্যবসায়ী কমিটির পক্ষ থেকে জনসাধারণকে অনুরোধ করা হয়েছে প্রয়োজনীয় কাজ সেরে দ্রুত বাজার ত্যাগ করার জন্য। অপ্রয়োজনীয় অথবা কারণ ছাড়া কেউ বাজারে আসলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।
তবে নবীনগরের সুশীল সমাজ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক কথা বলতে দেখা যাচ্ছে। তার মধ্যে অনতিবিলম্বে নবীনগরের প্রধান প্রধান প্রবেশ পথগুলো বন্ধ করা (তবে নিত্য প্রয়োজনীয় ও ঔষধের যানবাহন ব্যতীত), প্রতিটি প্রবেশ পথে আইনশৃংখলা বাহিনী সদস্যদের টহল জোরদার করা, প্রতিটি পাড়া মহল্লায় নিজ উদ্যোগে লকডাউনের ব্যবস্থা করা, নৌ-পথের যোগাযোগ বন্ধ করা (রোগী ব্যতীত), বিশেষ করে নবীনগর সিতারামপুর-মনতলা খেয়াঘাটের পারাপার বন্ধ করা।
করোনাভাইরাসের সংক্রমন প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে আজ সকালে নবীনগর বাজার পরিদর্শন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনির, পৌরসভার মেয়র এডভোকেট শিব শংকর দাস, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইকবাল হাসানসহ রাজনৈতিক ও বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।