ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ – ৩ধর্ষক আটক

১১ এপ্রিল, ২০২০ : ১:১৯ পূর্বাহ্ণ ৫২৮২

আসাদুজ্জামান আসাদ: জেলার বাঞ্ছারামপুরে গ্রামের কৃষকের ৮ম শ্রেনীতে পড়ুয়া মেয়েকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করার অভিযোগে তিন যুবককে আটক করেছে বাঞ্চারামপুর থানা পুলিশ।

বাঞ্ছারামপুর উপজেলার মানিকপুর ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামের উত্তর পাড়া নির্মানাধীন ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম কলেজের উত্তর পূর্ব পাশের জমিতে ঘটনাটি ঘটে। অভিযুক্ত তিন ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ৷

বুধবার ৮ই এপ্রিল রাত ১০ ঘটিকার সময় ঘর থেকে মুখে কাপড় বেধে ওই ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থীকে তুলে নিয়ে যায় ৪জন পাষণ্ড। ইমন(২০)নামে যুবক ওই শিক্ষার্থীকে রাতের অন্ধকারে কলেজের উত্তর পূর্ব পাশের জমিতে নিয়ে ধর্ষণ করার পর বাকি তিনজন মুকুল(২০), সাদ্দাম(২১) ও ইয়াসিন আরাফাত(২৩)ওই শিক্ষার্থীকে পালাক্রমে আবার গণধর্ষণ করেন৷

রাত্রে জানাজানি হয়ে গেলে পাষণ্ডরা ওই শিক্ষার্থীকে বাড়িতে দিয়ে পালিয়ে যায়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত ইমন মিয়া(২০), মুকুল(২০) ও ইয়াসিন আরাফাত(২৩) নামের ধর্ষককে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে । অভিযুক্ত ইমন(২২) বাঞ্ছারামপুর উপজেলার মানিকপুর ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামের সানাউল্লাহ’র ছেলে, বাকিরাও একই গ্রামের।

২৫০শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ নাজমুল হক জানান, যেহেতি মেয়েটির সাথে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে তাই আমরা তাকে ভর্তি হতে বলি৷ হাসপাতালের গাইনী কনসালটেন্ট মেয়েটির ডাক্তারি পরিক্ষা নিরিক্ষা করলে পরবর্তিতে ঘটনার বিস্তারিত জানতে পারবেন ।

বাঞ্ছারামপুর থানার (ওসি) সালাউদ্দিন চৌধুরী জানান, অভিযুক্ত ধর্ষককে শিক্ষার্থী সনাক্ত করার পর ভিকটিমের বাবা ৯ এপ্রিল(শুক্রবার) গভীর রাতে বাদী হয়ে মামলা করলে ভোররাতে ঘটনাস্থল থেকে ইমনসহ তিনজনকে আটক করা হয়। বর্তমানে মেয়েটিকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।