করোনায় অসহায়দের প্রতিদিন রান্না করে খাবার খাওয়াচ্ছেন সোহেল, এনি ও ফাহিম

১৪ এপ্রিল, ২০২০ : ৮:০৮ অপরাহ্ণ ৬৯৯

আসাদুজ্জামান আসাদ: ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের মধ্যপাড়া বর্ডার বাজার এলাকার ছাদেক মিয়ার ছেলে সোহেল খান ও তার আত্ননীয় পুনিয়াউট এলাকার কাব্য আক্তার এনি ও হালদারপাড়ার ফাহিম চলমান করোনা পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। গত ১০ দিন যাবত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শহরে প্রতিদিন নিজেদের রান্না করা খাবার অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করেছেন তারা।

এ বিষয়ে সোহেল খান তেপান্তর কে বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের বিভিন্ন এলাকার গৃহহীন অসহায় মানুষদের মধ্যে রান্না করা খাবার বিতরণ কার্যক্রম শুরু করছি। এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে যতদিন করোনা পরিস্থিতি থাকে।

গাড়ি নিয়ে ঘুরে ঘুরে প্রতিদিন গৃহহীন ১০০ থেকে ১৫০ জন লোকের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। গত রোববার (০২ এপ্রিল) বিকেল থেকে এ কার্যক্রম শুরু করেছি।’

সোহেল আরও বলেন, রান্না করা খাবার বিতরণের পাশাপাশি আমরা অসচ্ছল পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রীও বিতরণ করেছি।আমি এবং আমার আত্নীয় এনি প্রথমে খাদ্য সামগ্রী বিতরণের উদ্যোগ নিই। নিজেদের জমানো অর্থ এবং আমাদের পরিবারের বড়দের থেকে টাকা নিয়ে প্রথম কার্যক্রম শুরু। তারপর আমাদের অনেক আন্তীয় আমাদের কাজের প্রশংসা করে তারাও আর্থিক ভাবে সহযোগিতা শুরু করলে আমারা নিজেরা রান্না করে পৌর এলাকার ষ্টেশনরোড,টেংকের পাড়,মটের গোড়া,কালিবাড়ি মোড় ও কাউতুলিতে ঘুরে ঘুরে রাস্তায় থাকা গরীব ও রিস্কাচালকদের মাঝে খাবার বিতরণ শুরু করি।এই করোনা দুঃসময়ে অসহায় মানুষের পাশে বিত্তবানদের দাঁড়ানো উচিত বলে মনে করি।

কাব্য আক্তার এনি বলেন, প্রথম দিকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেও পরে দেখলাম স্টেশনে, রাস্তায় অনেক মানুষ না খেয়ে বসে থাকে।তখন ই তাদের জন্য রান্না করা খাবার বিগত ১০দিন যাবত বিতরণ করছি।এই কাজে অনেক ঝামেলা পোহাতে হলেও মনে প্রশান্তি আসে আর তাছাড়া আমাদের পরিবারের সবাই এবং বন্ধুরা ও বিভিন্নভাবে সাহায্য করে।তাদের উৎসাহ ই আমাদের কাজ করার আগ্রহ বাড়িয়ে দিয়েছ।যতদিন দিন করোনার ওই পরিস্থিতি থাকবে ততদিন ই এই কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা আছে।

এবিষয়ে তেপান্তরের সম্পাদক সীমান্ত খোকন বলেন, তারা যেটা করছেন তা একটি মহৎ উদ্যোগ। নিজেরা রান্না করে পথে পথে মানুষ খুজে তাদেরকে খাওয়ানোর নজির খুব কম। কিন্তু তারা এটা অবলীলায় করছেন। আমি ঘটনাটি দেখে অভিভূত হয়েছি। এই সঙ্কটময় মূহুর্তে সবার উচিত অসহায়দের পাশে দাড়ানো।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।