ডা:হামিদা মুস্তফা সেঁওতির করোনা ভাইরাস রি-টেস্টে নেগেটিভ এসেছে

১৬ এপ্রিল, ২০২০ : ৮:০৩ পূর্বাহ্ণ ৮৬৯

এস এম টিপু চৌধুরী: ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার একমাত্র প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ডাঃ হামিদা মুস্তফা সেঁওতি ও তার স্বামীর দেহের করোনা ভাইরাস রি টেস্টে নেগেটিভ এসেছে বলে জানা গেছে।

বিজয়নগর উপজেলার ৫০ শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার হিসেবে কর্মরত ছিলেন নারী চিকিৎসক হামিদা মুস্তফা সেঁওতি। পুরো জেলায় ১০ জন করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্ত রোগীর মধ্যে তিনি নারী চিকিৎসক ছিলেন।
গত মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) দুপুরে তার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। সনাক্ত হওয়ার পর নিজের পরিচয় আড়াল না করে ফেসবুকে সাহসী স্ট্যাটাস দিয়ে দূরন্ত সাহসী ভূমিকা দেখিয়ে বিভিন্ন মহলে দোয়া ও প্রশংসা কুঁড়িয়েছেন।

গতকাল (১৫ এপ্রিল) রাত ১১.৫৩ মিনিটে অপর আরেকটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি।স্ট্যাটাসে বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে যা লিখেছেন। তা হুবহু তুলে ধরা হলো:
আলহামদুলিল্লাহ!
আমার ও আমার স্বামীর গত কালকের পাঠানো স্যাম্পলের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।
এর আগে আমার রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর আমার কর্মস্হল ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার প্রশাসন,স্বাস্হ্য প্রশাসন,সম্মানিত সিনিয়র এবং কলিগ ও পরিবার পরিজনদের কাছে সকল ধরনের মানসিক সাপোর্ট ও আশ্বাস পেয়েছি।একই সাথে আমার স্বামীর বর্তমান কর্মহল ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসন, স্বাস্হ্য প্রশাসন,ময়মনসিংহ বিএমএ এবং স্বাচিপ এবং মমেকহার কলিগদের আন্তরিক সাহায্যে আমার এবং আমার স্বামীর এই বিপদের সময় আবাসন ও খাদ্য সংকট সহ আরো সকল সমস্যার সহজ সমাধান হয়। আমি আপনাদের সবার কাছে কৃতজ্ঞ।

তবে আমাকে এখন পর্যন্ত সুস্হ ঘোষণা করা হয় নাই। আরো একবার পরীক্ষা করা হবে।
এর আগে গতকাল আমার সাথে আমার এলাকাবাসী/বাড়ীওয়ালা/স্হানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে ভুল বুঝাবুঝি হয়,বিরুপ পরিস্হিতির সৃষ্টি হয়।এই বিপদকালে আমরা প্রত্যেকে প্রত্যেকের মুখোমুখি না দাড়িয়ে পাশাপাশি অবস্হান করব,এটাই কাম্য। অন্যথায় বিশ্বের এই গভীর সঙ্কট মোকাবিলা দুষ্কর হয়ে পড়বে। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন। যেন সুস্হ্য হয়ে কাজে ফিরতে পারি।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।