ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চিকিৎসা না দিলে আত্মহত্যার হুমকি দিল করোনা আক্রান্ত রোগী

১ মে, ২০২০ : ২:০০ অপরাহ্ণ ৪১৩২

আসাদুজ্জামান আসাদঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিজয়নগর উপজেলার কোয়ারান্টাইনে থাকা সদর মধ্যপাড়ার সাজেদা বেগমের আজ ১মে (শুক্রবার) করোনা পজেটিভ আসায় সিভিল সার্জন ওনাকে ঢাকা পাঠানোর সিদ্ধান্ত জানালে, ঢাকা যেতে নারাজ সাজেদা বেগম ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চিকিৎসা না হলে আত্মহত্যার করবেন বলে জানান ।

সাজেদা বেগমের মেয়ে কুহিনূর তেপান্তর কে জানান,আমাদের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণনাড়িয়া শরীফপুর গ্রামে।আমার মা-বাবা চট্রগ্রামে বসবাস করতেন।কিছুদিন আগে আমার বাবা চট্রগ্রামে হ্রদরোগে মারা গেলেও করোনা সন্দেহে আমাদের গ্রামের বাড়িতে রাতের আধারে দাফন করা হয়।তখন থেকে আমার মা এবং মধ্যপাড়া বসবাস করা আমার ভাই বিজয়নগর কোয়ারান্টাইনে আছেন। এখন আমার মায়ের করোনা পজেটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। তাই আমার আম্মাকে ঢাকা প্রেরণ করতে চাচ্ছে।কিন্তু আমার আম্মার শারীরিক কোন সমস্যা না থাকায় পরিবার এবং আম্মা নিজেই ঢাকা যেতে নারাজ।আমার আম্মা ব্রাহ্মণবাড়িয়াতেই চিকিৎসা নিতে চাচ্ছেন।তার জন্য সিভিল সার্জন আমাদের বন্ড সই দিতে বলেছিল আমরা তাতে রাজি হলেও এখন ওনারা জোর পূর্বক ঢাকা পাঠাচ্ছেন।তাই আমার আম্মা আমাদের বলেছেন ওনাকে ঢাকা নেয়া হলে ওনি আন্তহত্যা করবেন।এই কথা সিভিল সার্জন কে জানানোর পরও তিনি ঢাকা পাঠানোর কথা জানালে আমার মা বিজয়নগর সেন্টারেই দরজা বন্ধ করে দিয়েছেন।আমরা আতংকিত।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডাঃমোহাম্মদ একরামুল্লা তেপান্তর কে বলেন,সাজেদা বেগমের বয়স ৬০ বছর। কিছুদিন আগে ওনার স্বামীও করোনা সন্দেহে মারা গেছেন।তাই আমরা ওনাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রাখতে চাচ্ছি না আর ব্রাহ্মণনাড়িয়ায় ভেন্টিলেটর সিষ্টেম না থাকায় আমরা করোনার পাশাপাশি যারা অন্যান্য রোগে আক্রান্ত কিংবা বয়স বেশি তাদের ঢাকায় পাঠিয়ে দিচ্ছি। ওনি আরো বলেন,প্রথমে বন্ড সই এর কথা বললেও এখন আর সে সুযোগ নেই রোগিকে বুজিয়ে ঢাকা পাঠাতেই হবে কেননা ওনার বয়স বেশি এবং অন্যান্য রোগে আক্রান্ত। আর ওনি ভয়ের কারণে আত্মহত্যার কথা বলে থাক্তে পারেন, ওনার কাউন্সিলিং করাতে হবে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।