নিখোঁজ উর্মিকে ১ মাসেও উদ্ধার করতে পারেনি নবীনগরের পুলিশ 

৬ মে, ২০২০ : ৭:০৮ অপরাহ্ণ ৫৪৮

মোঃ সফর মিয়া ,নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি; করোনা আতঙ্কের মধ্যেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের রতনপুর গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে উর্মি আক্তার সিনথিয়া (৮) নামে এক শিশু নিখোঁজ হয়েছে। নিখোঁজ হওয়ার একমাস পেরিয়ে গেলেও এখনো উদ্ধার হয়নি উর্মি।
জানা যায়, গত ৬ এপ্রিল নিজ বাড়ির উঠানে খেলা করার সময় শিশুটি হারিয়ে যায়। ওই দিন রাতেই নবীনগর থানায় একটি জিডি করা হয়। নিখোঁজ হওয়ার একমাস পেরিয়ে গেলেও এখনো শিশুটির কোনো সন্ধান করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে উর্মির বাবা মেয়ের সন্ধানদাতার জন্য এক লাখ টাকা পুরষ্কার ঘোষণা করেছেন।
শিশুটির বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, শোকার্ত মা-বাবা এবং পরিবার আহাজারি করছে। শিশুটির বাবা আজাহার আহম্মেদ বলেন, একমাস হয়ে গেলো আমার মেয়ে নিখোঁজ হয়েছে, এখনো পুলিশ আমার মেয়ের কোন সন্ধান দিতে পারে নাই। আমার মেয়েকে খোঁজার বিষয়ে পুলিশের কোনো তৎপরতা দেখছি না। জানিনা আমার মেয়ে এখন কোথায় আছে কেমন আছে। এখন আমার মনে হচ্ছে আমার মেয়েকে অপহরন করা হয়েছে।
উর্মির মা সাবিনা বেগম আহাজারি করে শুধু একটি কথাই বলছিলেন, আজ একমাস হয়ে গেলো আমার কলিজার টুকরো আমার কাছ থেকে হারিয়ে গেছে। তোমরা ‘আমার মেয়েকে এনে দাও। আমার মেয়ে ছাড়া আমি বাঁচব না।’
রতনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রুহুল আমীন বলেন, মেয়েটির সন্ধানে পুলিশের কোনো তৎপরতা আমরা দেখছি না। দ্রুত শিশুটিকে খুঁজে বের করার দাবি জানাচ্ছি। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা ফারুক বলেন, আজাহারের পরিবার সাথে গ্রামের কারো কোনো দ্বন্ধ নেই। আমরা বুঝতে পারছি না, কে তার সাথে এমন করলো।
এ ব্যাপারে নবীনগর থানা অফিসার্স ইনচার্জ রনোজিত রায় বলেন, শিশুটিকে উদ্ধারের জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার স্যার সহ আমাদের একটি বিশেষ টিম বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত ও অভিযান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে রতনপুর গ্রামের আতিকুর রহমান রাজু(২৫) ও খাগাতুয়া গ্রামের সিএনজি চালক মনির হোসেন(৪২)কে আটক করা হয়েছে।
উল্লেখ্য- আজহার আহম্মেদ তার স্ত্রী সন্তান নিয়ে ঢাকায় বসবাস করেন,ঘটনার দেড় মাস আগে পরিবার নিয়ে বাড়িতে আসেন।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।