ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২২ ছাত্রলীগ নেতাকর্মী গ্রেফতার: ওসি (তদন্ত)’র প্রত্যাহার চায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ

১৪ মে, ২০২০ : ৭:০১ অপরাহ্ণ ২২১১

আসাদুজ্জামান আসাদ: গত ১৩ ই মে (বুধবার) আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের বাগানবাড়ি ও হালদারপাড়ার ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মিকাইল হোসেন হিমেল সহ ২২জনকে আটক করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানা পুলিশ। এই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে এবং পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মিকাইল হোসেন হিমেল সহ আটক ২২জনের মুক্তির দাবী জানিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। একই সাথে সদর থানার ওসি (তদন্ত)’র প্রত্যাহার চেয়েছে সংগঠনটি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের এক প্যাডে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেন সংগঠনটির সভাপতি শেখ রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক শেখ রাব্বি।প্রস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ এর রয়েছে রক্তের সম্পর্ক।করোনায় যেখানে ছাত্রলীগের কর্মীরা জিবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে।সেখানে তুচ্ছ ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তার আক্রোশের শিকার হয়ে ছাত্রলীগের একটি ইউনিটের প্রধান সহ ২২জনকে গ্রফতার করে তাদের কারাগারে পাঠানোর তীব্র নিন্দা জানান এবং অবিলম্বে সবার মুক্তির দাবী জানান।

জেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি শেখ রাসেল তেপান্তর কে বলেন, আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কর্মী হিসেবে বলতে চাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগ অভিভাবক শূন্য!
তা নাহলে হিমেলের আজকে কারাগারে যেতে হত না।আমি হিমেলের সঙ্গে অনেক বছর ছাত্রলীগ করেছি। ছোট্ট একটি গঠনার কথা যদি বলি, ২০১৩ সালের ২ই জানুয়ারি বিএনপি জামাতের অবৈধ হরতালের সময় মৌলভী পাড়াই ছাত্রদলের ককটেলে হিমেল আহত হন তখন আমিও হিমেলের সঙ্গে ছিলাম একটুর জন্য আমি বেঁচে যাই কিন্তু হিমেল রক্ষা পাইনি। সেই হিমেল যদি একজন পুলিশ অফিসারের আক্রোশের শিকার হয় তাহলে আমি বলতে চাই সেই পুলিশ অফিসার ছাত্রজীবনে ছাত্রশিবির কিংবা ছাত্রদলের কেডার ছিলো।আগামি ৪৮ ঘন্টার মধ্যে যদি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) কে প্রত্যাহার না করা হয় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ,ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার নেতা-কর্মীরা রাজপথে নামতে বাধ্য হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভন তেপান্তরকে বলেছিলেন,ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ওসি তদন্ত শাহজাহান এর সাথে পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মিকাইল হোসেন হিমেলের পূর্ব সমস্যা থাকায় তার আক্রোশের শিকার হয়েছেন হিমেল সহ গ্রফতারকৃত সবাই।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।