রাস্তায় পড়ে থাকা চট্রগ্রামের চাঁন মিয়ার চিকিৎসা করাল ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার পুলিশ

১২ জুন, ২০২০ : ২:১১ অপরাহ্ণ ১৬৯৮

আসাদুজ্জামান আসাদঃ রাস্তার পাশে কাটা-ছেঁড়া বা পচন ধরা শরীর নিয়ে পড়ে আছেন এমন অসহায় মানুষের চেহারা হয়তো চলার পথে মাঝেমধ্যেই অনেকের চোখে পড়ে। সঠিক সময়ে চিকিৎসাসেবা না পাওয়া এসব মানুষের কারও শরীরে আস্তে আস্তেব পচনের মাত্রা এত বেশি হয় যে পোকাতে আক্রান্ত হন কেউ কেউ। এসব অসুস্থ অঙ্গ থেকে দুর্গন্ধও ছড়ায় অনেকের। বেশিরভাগ মানুষই তাদের এড়িয়ে যান, কেউ কেউ হয়তো কিছু সহায়তাও দেন কিন্তু, প্রকৃত চিকিৎসাসেবা দিয়ে এদের যে সুস্থ করা সম্ভব তা হয়ত অজানাই রয়েছে অনেকের। ঠিক এই জায়গাতেই ব্যতিক্রমী ভূমিকা রাখছেন কিছু হ্রদয়বান মানুষ এবং পুলিশ সদস্যরা।

আজ ১২জুন(শুক্রবার) ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন রোডে অজ্ঞাত এক ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখা যায়।অনেকক্ষন একি জায়গায় পড়ে থাকলেও কেউ যখন ধারেকাছেও ভীড়ছিল না তখন স্টেশন রোডের এক দোকানধারের মাধ্যমে পুলিশে খবর দেন পৌর এলাকার ৯নং ওয়ার্ডের ভ্যান চালক মনতাজ মিয়া। ব্রাহ্মণবাড়িয়া  সদর থানার এসআই মুজিবর ফোনে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন এবং ভ্যান চালক এর সহযোগিতাই  চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন জেলা সদর হাসপাতালে।

ভ্যান চালক মনতাজ মিয়া তেপান্তর কে জানান,আমি নেত্রকোনার জেলার মানুষ হলেও দীর্ঘদিন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৯ নং ওয়ার্ডে বসবাস করছি। আজ এই লোকটাকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখি।কেউ ভয়ে যাচ্ছিল না লোকাটার কাছে।অনেক্ষন পরে এক দোকানীকে অনুরোধ করে পুলিশে খবর দেয়।পরে পুলিশ এসে লোকটাকে আমার ভ্যান গাড়িতে তুলেন এবং  তার জন্য নতুন কাপড়ের ও ব্যবস্থা করেন।এরপর তাকে চিকিৎসার জন্য সদর হাস্পাতালে আনা হয়।

রাস্তায় পড়ে থাকা ব্যাক্তির আইডি কার্ড

এ ব্যাপারে এস আই মুজিবর তেপান্তর কে বলেন,ফোনে খবর পেয়ে স্টেশন রোডে গিয়ে লোকটা কে পড়ে থাকতে দেখি।তার সারা গায়ে কাটা ছেঁড়া এবং পচন রয়েছে।তাই কেউ সাহায্যর জন্য এগিয়ে আসেনি।লোকটার কাছে থাকা আইডি কার্ড দেখে জানতে পারি ওনার নাম, চাঁন মিয়া।তিনি চট্রগ্রাম এর পাহাড়পুর এলাকার বাসিন্দা। চাঁন মিয়ার গায়ের কাপড় ময়লা হওয়ায় তার জন্য নতুন কাপড় কিনি।কারন ভাল কাপড় ছাড়া হাস্পাতালে ভর্তি নেবে না।এখান সদর হাস্পাতালে নিয়ে এসে নিজেই টিকেট কেটে সু-চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করছি।আইডি কার্ড যেহেতু পেয়েছি চেষ্টা করব তার পরিচিতদের কাছে খবর পৌঁছানোর।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।