সৌদিতে নির্যাতিত হওয়ার পর হাসপাতাল থেকে নিখোজ নাসিরনগরের কুলসুম

২৯ জুন, ২০২০ : ৯:১৬ অপরাহ্ণ ৪১৫

মোঃ আব্দুল হান্নান: সৌদিতে গৃহকর্তা ও তার পূত্রবধুর দ্বারা নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হবার পর নিখোজ হয়ে গেছেন উম্মে কুলসুম (২৬) নামে এক যুবতী। গত ২০ তম রোজার দিন হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় বাবা-মায়ের সাথে শেষ কথা হয় কুলসুমের। তারপর থেকেই সে নিখোজ। কুলসুমের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার গোকর্ণ ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামে। এঘটনায় কুলসুমের মা নাসিমা বেগম বাদী হয়ে দালাল আব্দুর রাজ্জাক ও তার স্ত্রীর নামে নাসিরনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।ডায়েরি নং-৮৩৪,তারিখ: ২৪/০৬/২০২০।

কুলসুমের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ৭ এপ্রিল পরিবারের অভাব গোছাতে স্থানীয় দালাল আব্দুল রাজ্জাকের মাধ্যমে ঢাকার ফকিরাপুল ডিআইটি রোডে অবস্থিত সান ট্রাভেলসের মাধ্যমে সৌদি আরব পাঠায়। অপরদিকে দালাল বলছে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেলস থেকে থাকে সৌদি পাঠানো হয়েছে।

সেখানে গিয়ে রিয়াদ এলাকার এক মালিকের বাসায় কাজ নেয়। কিন্তু মালিকের নাম ও ঠিকানা বলতে পারছেনা পরিবারের কেউ। প্রায় ৬/৭ মাস বাড়ীতে বেতন পাঠানোর পর আর কোনো টাকা পয়সা পাঠায়নি উম্মে কুলসুম।

জানা গেছে প্রায় গত ২০ রমজান উম্মে কুলসুম চিকিৎসাধীন অবস্থায় সৌদি আরবের রিয়াদে অবস্থিত কিং ফয়সাল হাসপাতাল থেকে ফোনে তার মা- বাবা ও আত্মীয় স্বজনকে জানায় তার মালিক ও মালিকের ছেলের বৌ তাকে মারপিট করে মারাত্বক ভাবে আহত করার কারণে বর্তমানে সে মুমুর্য অবস্থায় হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। বর্তমানে উম্মে কুলসুমের মালিকের মোবাইল ফোন নাম্বার ০০৯৬৬৫০৮৬৬৭০৬১ বন্ধ রয়েছে।

এ বিষয়ে উম্মে কুলসুমের মা নাসিমা বেগম বাদী হয়ে দালাল আব্দুর রাজ্জাক ও তার স্ত্রীর নামে নাসিরনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী নং-৮৩৪,তারিখ: ২৪/০৬/২০২০ দায়ের করেছে। নাসিমা বেগম জানান, ডায়েরী করার পর থেকে দালাল রাজ্জাক ও তার স্ত্রী পলাতক রয়েছে। বর্তমানে মেয়ে না পেয়ে তার পরিবারে বিরাজ করছে চরম আতংক।

  • 199
    Shares