ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনুমোদনহীন হাসপাতালের চিকিৎসা: সিজারের সময় বাচ্চার পেট কেটে ফেললো ডাক্তার

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ : ৬:২৬ অপরাহ্ণ ১১৪৬

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আল ফালাহ নামে একটি ক্লিনিকে সিজারের সময় নবজাতকের পেট কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে।চিকিৎসকের অবহেলায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করছেন শিশুটির স্বজনেরা।

এ ঘটনায় অনুমোদন না থাকায় ক্লিনিকটি বন্ধ করে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রোববার সকালে শহরের কাউতলীতে এই ঘটনা ঘটে।

শিশুটির মায়ের নাম ফারজানা আক্তার। তার সিজার করেন চিকিৎসক মারুফা রহমান।

নবজাতকের বাবা তৌহিদুল ইসলাম জানান, দালালের প্ররোচনায় আখাউড়া থেকে স্ত্রীকে ওই ক্লিনিকে ভর্তি করান। সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে সিজার করেন ডা. মারুফা রহমান। পরে নার্সের কাছ থেকে কন্যা শিশুর পেটে ক্ষত তৈরির খবর পান।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে ক্লিনিক গেলে চিকিৎসক মারুফাকে পাওয়া যায়নি। তার মোবাইল ফোনটিও বন্ধ রয়েছে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।