নাসিরনগরে ভুল চিকিৎসায় তরুণীর মৃত্যু, আটক ৩ জন

৪ অক্টোবর, ২০২০ : ২:২৫ অপরাহ্ণ ৩১৩

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নাসিরনগর উপজেলায় একটি বেসরকারি ক্লিনিকে নাসরিন আক্তার নামে কিশোরীর মৃত্যু নিয়ে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধের ঘটনা ঘটেছে।  পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

শনিবার (৩ অক্টোবর) রাত ৮ টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কাছে অবস্থিত মেঘনা মেডিক্যাল সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে।

ক্লিনিকে মারা যাওয়া নাসরিন আক্তার উপজেলার গোকর্ণ ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামের আনোয়ার আলীর মেয়ে।
এঘটনায় পুলিশ নজরুল ইসলাম নামে নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাবেক ওয়ার্ড বয়সহ তিনজকে আটক করেছে।

নাসরিন আক্তারের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বছর খানেক আগে নাসরিন বাম পায়ে আঘাত পান।  সেসময় তার বাম পায়ের হাঁটুর উপরের অংশের হাড় ভেঙ্গে যায়।  পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।  প্রায় এক বছর চার মাস ঢামেকে চিকিৎসা দেওয়া হয়।  সেখানে তার পায়ে রড বসানো হয়।  শনিবার বিকেলে নাসরিনের পায়ের রড খোলার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে অবস্থিত মেঘনা মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে যায় পরিবারের লোকজন।  এ ব্যাপারে নজরুল ইসলাম ৮ হাজার টাকায় পরিবারে সঙ্গে চুক্তি করেন।  শনিবার রাতে পায়ের রড খোলার সময় নাসরিন মারা যায়।  এসময় নাসরিনের পরিবার রাস্তায় বিক্ষোভ ও অবরোধ শুরু করেন।  খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নাসরিনের লাশ উদ্ধার করে ও নজরুলসহ তিনজকে আটক করে।

নাসরিনের মা রাশেদা বেগম জানান, নজরুলের অপরিপক্কতার জন্য তার মেয়ের মৃত্যু হয়েছে।  তিনি এ ঘটনার বিচারের দাবি করেছেন।

নাসিরনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এটিএম আরিচুল হক বলেন, নাসরিনের মৃত্যুর ঘটনায় তার স্বজনরা রাস্তা অবরোধ করে।  পরে আমিসহ পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

  • 156
    Shares