নবীনগরে মা ইলিশ রক্ষায় ১২ জেলেকে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা

১৯ অক্টোবর, ২০২০ : ৬:৪৪ অপরাহ্ণ ৪০৫

মো. সফর মিয়া: নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে মেঘনায় ইলিশ নিধনের অপরাধে ১২ জেলেকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

উপজেলা মৎস অফিস সূত্রে জানা যায়, ইলিশের প্রজনন মৌসুম হওয়ায় গত ১৪ অক্টোবর থেকে ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ মাছ নিধনে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। সরকারের এই নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইকবাল হাসান এর নেতৃত্বে সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মেঘনা নদীর চরলাপাং, মানিকনগর, বড়িকান্দি, সোনাবালোয়ার অংশে অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযানকালে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অবৈধ কারেন্ট জাল দিয়ে ইলিশ নিধনের চেষ্টাকালে ১২ জন জেলেকে আটক করা হয় । এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালত মৎস্য রক্ষা ও সংরক্ষণ আইন ১৯৫০ মোতাবেক আটককৃতদের প্রত্যেককে পাঁচ হাজার করে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেন । এসময় জেলেদের কাছ থেকে ৫০০ মিটার জাল ও ১৫ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।জব্দকৃত জাল সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা এবং ইনচার্জ, সলিমগঞ্জ নৌ পুলিশ ফাড়ির জিম্মায় দেওয়া হয়। ইলিশ ধরার নিষিদ্ধ সময়ের (০৪.১১.২০২০ খ্রিঃ) পর জব্দকৃত জাল উন্মুক্ত নিলামে বিক্রি করা হবে। জব্দকৃত ইলিশ মাছ সলিমগঞ্জ এর ২টি আবাসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণের ( শিক্ষার্থীদের জন্য) মধ্য বিতরণ করা হয়।

এসময় উপজেলা সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা আবু মাসুদ ও সলিমগঞ্জ নৌ-পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মো. আবু বকর ছিদ্দিক প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা আবু মাসুদ বলেন, সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ নিধনের অপরাধে ১২ জন জেলেকে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে । আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইকবাল হাসান বলেন, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ইলিশ মাছ আহরণ নিষিদ্ধ। এসময় নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে যদি কেউ মাছ ধরে বা বিক্রি করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।