নবীনগরে বিষ প্রয়োগে লক্ষাধিক টাকার মাছ নিধন

২৪ অক্টোবর, ২০২০ : ৩:১৬ অপরাহ্ণ ৩৮০

মো. সফর মিয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ইব্রাহিমপুর ইউনিয়নের বাছিদপুর গ্রামে গভীর রাতে একটি ৩ বিঘার পুকুরে কীটনাশক প্রয়োগে মাছ মেরে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় প্রায় লক্ষাধিক টাকার মাছ মারা গেছে বলে জানা গেছে।শুক্রবার গভীর রাতে ওই ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বাছিদপুর গ্রামে । এ ঘটনায় পুকুরের লিজ গ্রহিতা রঞ্জিত দাস পুকুরের মালিকের ছেলের বিরুদ্ধে গ্যাস দিয়ে মাছ মেরে ফেলার অভিযোগ তুলেছেন।

রঞ্জিত দাস জানান, ইব্রাহিম গ্রামের মান্নান কেরানীর কাছ থেকে ১০৬ শতক আয়তনের পুকুরটি আমি তিন বছরের জন্য লিজ নিয়ে গত সপ্তাহে বিভিন্ন জাতের প্রায় ১লাখ দশ হাজার টাকার মাছ ফেলে ছিলাম। আগে আরো মাছ ছিলো, করোনার কারনে মাছ বিক্রী করতে পারি নাই। লিজ নিয়ে গত কয়েক দিন ধরে আলমগীরের সাথে ঝামেলা চলছিলো।

বৃহস্পতিবার মান্নান কেরানির ছেলে আলমগীর পুকুরে চুন ও বিষ দিয়েছে বলে আমি জানতে পেরেছি। শুক্রবার সকাল থেকে সকল মাছ মরে ভেসে উঠছে। তিনি আরও বলেন, মাছ না মেরে আমাকে মেরে ফেলত। মাছের অপরাধ কী? এ ঘটনায় তিনি ও তার পরিবার সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছেন।

রঞ্জিত দাসের ব্যবসায়ী পার্টনার নাছির উদ্দিন বলেন, মান্নান কেরানীর ছেলে আলমগীর পুকুরে বিষ দিয়ে আমাদের লাখ টাকার মাছ মেরে ফেলেছে। এ বিষয়ে মান্নান কেরানীকে জানানো হলে তিনি বলেন, তোমরা এতোদিন মাছগুলো তুলে নিয়ে যাওনি কেন। আমি এই পুকুর অন্য জায়গাতে লিজ দিয়েছি।

এ বিষয়ে মান্নান কেরানীর ছেলে আলমগীর অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি পুকুরে যায়নি। নাছির লিজ নিয়েছে দেড় বছরের জন্য, ৩০ আশ্বিন পুকুর ছেড়ে দেওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু তারা পুকুরের মাছ তুলে নাই। আমি নতুন করে অন্য জায়গাতে লিজ দিয়েছি। যাদের কাছে লিজ দিয়েছি তারা পুকুরে চুন দেওয়ার জন্য পুকুর পাড়ে চুন নিয়ে রেখেছিলো। মাছ মরার সংবাদ পেয়ে আমিও পুকুরে গিয়েছিলাম।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।