ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের শেরপুর কবরস্থানে লাশ দাফন বন্ধ, সম্প্রসারন ও উন্নয়নে দরকার কয়েক কোটি টাকা

২৪ অক্টোবর, ২০২০ : ৮:৩৪ অপরাহ্ণ ৫৩৪

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের শেরপুর কবরস্থানে লাশ দাফন বন্ধ রয়েছে প্রায় ৬ মাস ধরে। কবরস্থানটির সম্প্রসারন ও উন্নয়নের লক্ষ্যে শনিবার শেরপুর কবরস্থান মাজার কমপ্লেক্সে শহরের বিশিষ্ট নাগরিকদের এক মত বনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকার।

শেরপুর কবরস্থান মাজার কমপ্লেক্স সভাপতি তাজ মোঃ ইয়াছিনের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া শিল্প ও বনিক সমিতির সভাপতি মোঃ আজিজুল হক, বেসরকারী ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজের চেয়ারম্যান ডাক্তার আবু সাঈদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি ও সাধারন সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি মনজুরুল আলম, জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সাধারন সম্পাদক মো: ওসমান গনি প্রমুখ।
কমপ্লেক্সের খতিব মুফতী সাইফুল ইসলাম সভাটি
সঞ্চালনা করেন।

মীর শাহাবুদ্দিন(র:) ওয়াকফ এস্টেটের আওতাধীন এই কবরস্থানটির জায়গার পরিমান প্রায় ৫২ শতক। মাজার, মসজিদ ও মাদ্রাসা সংলগ্ন শহর বাইপাস সড়কের পাশের কবরস্থান শহরের মানুষের পছন্দের। সে কারনে এখানে মরদেহ দাফনের চাপ রয়েছে। প্রতিদিনই ৫/৬ টি মরদেহ আসে। কবরস্থানটি সম্প্রসারনে আশপাশে আরো ৬২ শতক জায়গা ক্রয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে মতবিনিময় সভায় জানান
শেরপুর কবরস্থান মাজার কমপ্লেক্স সভাপতি তাজ মো: ইয়াছিন। এই জায়গা ক্রয়ে কয়েক কোটি টাকা প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।

কবরস্থানটি সম্প্রসারনে জায়গা ক্রয়ের অর্থের সংস্থানে সকলকে এগিয়ে আসার উদাত্ত আহবান জানান সভার প্রধান অতিথি জেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকার।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ব্যাক্তিদের অনেকে তাৎক্ষনিক তাদের সামর্থ্য অনুসারে নগদ অর্থ প্রদান করেন এবং পরবর্তীতে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।