নাসিরনগরে কবি-সংস্কৃতিকর্মী খুন, বিক্ষুদ্ধ সংস্কৃতি সমাজের প্রতিবাদ সভা

১০ নভেম্বর, ২০২০ : ৩:৪২ অপরাহ্ণ ১০৫

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে আপন মামাকে প্রতিপক্ষের হামলা থেকে বাঁচাতে গিয়ে খুন হলেন তরুন কবি,সংস্কৃতিকর্মী,সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক ও কলেজ ছাত্র সৈয়দ মোনাব্বির আহমেদ তনন। গত সোমবার দিবাগত রাত ৯ টার দিকে ঢাকায় নেয়ার পথে তিনি মারা যান। মোনাব্বির তনন উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের আলিয়ারা গ্রামের সৈয়দ বাড়ির মৃত সৈয়দ শিব্বির আহমেদ এর বড় ছেলে। সে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের মাস্টার্স (রাষ্ট্রবিজ্ঞান) শেষবর্ষের ছাত্র ও সৃজন সাহিত্য সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি।

সৈয়দ মোনাব্বির আহমেদ তননের ছোট মামা সৈয়দ ইব্রাহিম সোহান জানান,আলিয়ারা সৈয়দ বাড়ির পাশে একটি সরকারি খাল রয়েছে। সম্প্রতি এই খালে মাছ ধরার জন্য বাঁধ দেন একই এলাকার মোবাশ্বিরের বাড়ির লোকজন। বাঁধের কারণে সৈয়দ আবু তাহের এর বাড়ির একটি সাঁকো পানির নীচে চলে যায়। এ নিয়ে গত রোববার দুপুরে আবু তাহেরের বাড়ির সৈয়দ মাসুদ আহমেদ এর বাদানুবাদ ও হাতাহাতি করেন মোবাশ্বিরের বাড়ির মুছন মিয়ার ছেলে উসমান। গত সোমবার সকালে এলাকার বিশিষ্টজনেরা বিষয়টি মীমাংসা করে দেবেন বলে দু,পক্ষকে জানান।

সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে সৈয়দ আবু তাহেরের ছেলে সৈয়দ সুমন আহমেদ ও তার বোনের ছেলে সৈয়দ মোনাব্বির আহমেদ তনন বাড়ির পাশের একটি মোরগের ফার্ম থেকে বাড়ি ফেরার পথে মোবাশ্বিরের বাড়ির ১০/১৫ জন দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সুমনের উপর হামলা চালায়। এসময় সৈয়দ মোনাব্বির তনন মামাকে বাঁচাতে গেলে সন্ত্রাসীরা তননের মাথায়,শরীরের বিভিন্ন অংশে ও পায়ে বেধড়ক আঘাত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় সৈয়দ মোনাব্বির তননকে প্রথমে নাসিরনগর ও পরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে সন্ধ্যায় তার অবস্থার অবনতি ঘটে। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় প্রেরণ করেন। সোমবার রাতে ঢাকায় নেয়ার পথে রাত ৯ টার মৃত্যু ঘটে।

সৈয়দ মোনাব্বির তননের মৃত্যুর খবর পেয়ে পুলিশ এলাকায় ব্যাপক অভিযান চালায়। এসময় পাশ্ববর্তী গুনিয়াউক এলাকা থেকে পুলিশ সরফরাজ মিয়ার ছেলে তোফাজ্জল হোসেন (৩৫) কে আটক করেন। নাসিরনগর থানার ওসি (তদন্ত) কবির হোসেন জানান,আমরা খবর পাওয়ার সাথে সাথেই এলাকায় অভিযান চালিয়েছ্ িএ অভিযান অব্যাহতভাবে চলবে। খুনের ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে।
পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান জানান,খবর পাওয়ার পরই আমি নাসিরনগর থানা পুলিশকে কঠোরভাবে বিষয়টি দেখার জন্য নির্দেশনা দিয়েছি। এ ঘটনায় কেউ ছাড় পাবে না।

এদিকে তরুন কবি,সংস্কৃতিকর্মী সৈয়দ মোনাব্বির তনন খুনের ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কবি-লেখক-সংস্কৃতিকর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে চলছে প্রতিবাদের ঝড়। গতকাল মঙ্গলবার সকালে জেলা সদর হাসপাতালের তননের লাশ দেখতে এসে প্রতিবাদ সভায় মিলিত হন তারা। তিতাস সাহিত্য-সংস্কৃতি পরিষদের উপদেষ্টা ও প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পীর সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ সাংগঠনিক সম্পাদক মো.মনির হোসেন,জেলা খেলাঘর আসর সাধারণ সম্পাদক নীহার রঞ্জন সরকার,প্রবর্তক আবৃত্তি সংসদ সাধারণ সম্পাদক সোহেল আহাদ,কলেজ শিক্ষক ও কবি পারভেজ রায়,কলেজ শিক্ষক ও কবি পঙ্কজ দেব,কবি ও গীতিকার গাজী তানভীর আহমেদ,ঝিলমিল শিশু কিশোর সংগঠন পরিচালক কবি মনিরুল ইসলাম শ্রাবণ,তিতাস সাহিত্য-সংস্কৃতি পরিষদ সাংগঠনিক সম্পাদক এরফানুল হক সুজন,জেলা ছাত্রমৈত্রী সভাপতি কবি ফাহিম মুনতাসির,সৃজন সাহিত্য পরিষদ সাধারণ সম্পাদক কবি রিয়াজুল মোর্শেদ মোয়াজ,কন্ঠশিল্পি সোহাগ রায়। সভায় বক্তাগণ দ্রুত খুনীদের গ্রেফতারের দাবী জানিয়ে দাবী কর্মসূচী পালনের জন্য মনিরুল ইসলাম শ্রাবণকে আহবায়ক,এরফানুল হক সুজন ও ফাহিম মুনতাসিরকে যুগ্ম-আহবায়ক করে বিক্ষুদ্ধ সংস্কৃতি সমাজের ঘোষনা দেন।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

  • 26
    Shares