রোগীদের ভরসার জায়গা হতে পারছেনা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল

১৮ ডিসেম্বর, ২০২০ : ১:০৩ অপরাহ্ণ ৭৫২

সীমান্ত খোকন: কোন ভাবেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মানুষের ভরসার জায়গা হতে পারছেনা। এখন এখানে রোগীরা চিকিৎসা নিতে এসে উল্টো আতঙ্কে থাকেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ নতুন নয়। এই হাসপাতালের দালাল, এম্বুলেন্স সিন্ডিকেট, ডাক্তার ও নার্স কর্তৃক রোগীদের হয়রাণী ও অবহেলার কথা সমাজে প্রায় প্রতিষ্ঠিত। এছাড়া সদর হাসপাতালের অনেক ডাক্তার সরকারি ডিউটির সময় প্রাইভেট হাসপাতালে রোগী দেখার অভিযোগতো আছেই। এরই মধ্যে হামলায় আহত এক ব্যক্তির মেডিকেল সার্টিফিকেটে (এমসি) সত্য তথ্য লুকিয়ে মিথ্যা তথ্য দেওয়ার অভিযোগে গত ১৭ ডিসেম্বর মামলা খেলেন সদর হাসপাতালের ৬ ডাক্তার। এমন অনেক অভিযোগের পরও সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের নিজস্ব কর্মীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়না। আর একারনেই দিন দিন নতুন নতুন অপরাধ সংঘঠিত হচ্ছে এই হাসপাতালে। একটি সরকারি হাসপাতালের শিক্ষিত ডাক্তার ও তার সহকর্মীরা যদি এই ধরনের অমানবিক আচরণ করেন তাহলে সাধারণ রোগীরা যাবে কোথায়?

সদর হাসপাতালের ডাক্তার দ্বারা একাধিকবার সাধারণ রোগী ও সাংবাদিকদের অপমান ও লাঞ্ছিত’র ঘটনা ঘটলেও এর কোন সু-বিচার পাওয়া যায়না। এসব বিষয়ে সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কের কাছে প্রচুর লিখিত ও মৌখিক অভিযোগ করলেও এর কোন বিচার কখনো হয়েছে বলে শোনা যায়নি।

দিন দিন ডাক্তারদের এমন বেপরোয়া ও অপেশাদার আচরনে হতাশ ও বিরক্ত সারাধণ মানুষ।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে ডাক্তার শওকত র্দীঘদিন যাবৎ দায়ীত্ব পালন করলেও এই প্রতিষ্ঠানটির জন্য কোন সুনাম বয়ে আনতে পারেননি তিনি। বরং, যত দিন যাচ্ছে ততই হাসপাতালটির দূর্নাম বাড়ছে।

কিছুদিন আগে একটি পত্রিকাকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার শওকত বলেছিলেন, “হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা কমাতে পারলে হাসপাতালের ভিতরের পরিবেশ ৮০ ভাগ ভালো হয়ে যাবে”।

তার এমন বক্তব্য শুধু দায়ীত্বহীনতাই নয় বরং একটি সরকারি সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠানে সাধারণ রোগীদের আসতে নিরোৎসাহিত করার সামিল।

সেবা দেওয়ার মানসিকতা না থাকলে শুধু এমন বক্তব্য বা কয়দিন পর পর এমন কু-কর্মই নয়, ভবিষ্যতে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীকে আরো কতো কিযে দেখতে হবে তা কেউ জানেনা। তাই অচিরেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালকে জবাবদিহীর আওতায় আনা দরকার।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।