নবীনগরে মামলা চলাকালীন অবস্থায় রাতের আধারে জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণ করার পাঁয়তারা

২০ জানুয়ারি, ২০২১ : ৩:২২ অপরাহ্ণ ২৯৪

মো. সফর মিয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার রতনপুর ইউনিয়নের দুবাচাইল গ্রামের বীরপাড়ার মতি মিয়ার ২ শতাংশ জায়গা জোরপূর্বক দখল করে ঘর তোলার পায়তারা করছেন খলিলুর রহমান ও তার পরিবার। গ্রামের প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে নির্যাতনের খড়গ নেমে আসে এমন অভিযোগ মতি মিয়ার পরিবারের।

স্থানীয়রা জানান গত কিছুদিন পূর্বে ওই জায়গাটি জোরপূর্বক দখল করে খলিলুর রহমান। গ্রামের সাহেব সরদার এর উপস্থিতিতে একাধিকবার বৈঠক করে বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করলেও খলিলুর রহমান বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে তা অমান্য করেন।

পরে মতি মিয়ার ওই ২শতক জায়গার বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন খলিলুর রহমান। ওই মামলাটি বর্তমানে চলমান রয়েছে ।

এ ঘটনায় মতি মিয়ার পরিবার লোকজনকে বিজ্ঞ আদালত হাজির হওয়ার নির্দেশ দিলে তারা হাজির হন। বিজ্ঞ আদালত ওই দুই শতক জায়গার ব্যাপারে কোনো সুরাহা না দিলেও উল্টো রাতের আধারে খলিল ও তার লোকজন জোরপূর্বক দখল করে ঘরের নির্মাণের চেষ্টা চালালে নবীনগর থানায় ভুক্তভোগীরা জানান। পরে কাজটি বন্ধ হয়ে যায়।

মতি মিয়ার পরিবারের লোকজন বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। বিজ্ঞ আদালত বাড়ির দলিলাদি পর্যালোচনা করে যার পক্ষে রায় দিবেন আমরা সেটাই মাথা পেতে নিব।

অন্যদিকে খলিলুর রহমান ভাড়া করা লাঠিয়াল এনে পুনরায় ঘর নির্মাণ করার চেষ্টা করলে থানা পুলিশ আবারও ঘর নির্মাণ স্থগিত করে দেন।

সরেজমিনে গিয়ে খলিলুর রহমানের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন এই জায়গা আমার বলেই আমি আদালতে মামলা করেছি।

নবীনগর থানার ইন্সপেক্টর তদন্ত মোহাম্মদ রুহুল আমিন জানান বিষয়টি মীমাংসার লক্ষ্যে উভয়পক্ষকে থানায় তলব করা হয়েছে। কোনো সহিংসতার ঘটনা যেন না ঘটে তার জন্য ঘর নির্মাণ বন্ধ করা হয়েছে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।