নবীনগরে নির্বাচনী বিরোধে সংঘর্ষে ২ জন নিহত

২১ জানুয়ারি, ২০২১ : ১:৪০ পূর্বাহ্ণ ৩০৫

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের রসুলপুরে নির্বাচনী বিরোধের জেরে পাল্টাপাল্টি হামলায় ফারুক মিয়া (৫৫) ও মোয়াজ্জিন বাছির মিয়ার (৫৯) নিহত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (২০ জানুয়ারি) বিকেলে ও রাতে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মৃত্যুবরণ করেন।

নিহত ফারুক মিয়া নবীনগর উপজেলার রসুলপুর গ্রামের আব্দুল মন্নাফের ছেলে ও বাছির মিয়া উপজেলার নাটঘর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের মৃত আজম মুন্সীর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রসুলপুর গ্রামের বর্তমান ইউপি সদস্য সহিদ মেম্বারের সাথে বাছির মিয়ার ভাই সাবেক ইউপি সদস্য সোবহান মেম্বারের নির্বাচন নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গত বছরের ১৩ নভেম্বর সকালে বাছির মিয়ার বাড়ি থেকে বাইরে কাজে যাওয়ার সময় সহিদ মেম্বারের লোকজন দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। পরে গুরুতর আহতাবস্থায় বাছির মিয়াকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। পরবর্তীতে সেখানে চিকিৎসা শেষে তাকে আবার গত (১৫ জানুয়ারি) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে বাছির মিয়া দীর্ঘ ২ মাস ৮ দিন মৃত্যুর সাথে লড়ে বুধবার (২০ জানুয়ারি) বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

বাছির মিয়া নিহতের খবর ছড়িয়ে পড়লে সাবেক ইউপি সদস্য সোবহান মেম্বারের লোকজন শহীদ মেম্বারের লোকজনের বাড়িতে হামলা করে। এসময় ফারুক মিয়াকে একা পেয়ে ব্যাপক মারধোর করলে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুর রশীদ জানান, ফারুক মিয়ার শরীরে কোন জখমের চিহ্ন নেই। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। দুইটি মরদেহই ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে রাখা হয়েছে।ঘটনাস্থলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশের নজরদারি রয়েছে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

  • 43
    Shares