মালয়েশিয়ায় এখনো ভ্যাকসিন আসেনি, বাংলাদেশ গনহারে টিকা দিচ্ছে

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ : ৫:৩৭ অপরাহ্ণ ৮৩৯

এশিয়ার ইউরোপ হিসেবে বিখ্যাত মালয়েশিয়া। নিজ চোখে এসে না দেখলে আপনার কোনদিন বিশ্বাস হবে না যে এটা আসলে একটা স্বপ্নের দেশ। কি নেই এখানে? এখানে যারা বৈধ ও স্থায়ী ভাবে বাস করে তাদের মনে হয় ভূ-স্বর্গ কাশ্মীর নয় যেন ভূ-স্বর্গ হচ্ছে মালয়েশিয়া। মালয়েশিয়া সরকার যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজার এর ভ্যাকসিন ক্রয় সম্পন্ন করেছে। ধারনা করা হচ্ছে চলতি মাসের শেষের দিকে এই টিকার প্রথম চালান দেশে আসবে।

বাংলাদেশে এখন করোনা অনেক কমে গেছে এবং এই মুহুর্তে কোন লকডাউন প্রয়োজন নেই। মালয়েশিয়ায় করোনা প্রথম পরিস্থিতির পর এখন আগের চেয়ে ২০ গুন বেশি করোনা সংক্রমন বেড়েছে। ২০২০ এর মার্চ থেকে এপ্রিলে ছিল ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্তের হার ১৫০ জন থেকে ২০০ জন মাত্র। আর ২০২১ এর ফ্রেব্রুয়ারীর শুরুতে ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্তের হার বেড়েছে ৫ হাজার ৭ শত জনের উপরে। আর মালয়েশিয়ায় লকডাউনের পাশাপাশি চলছে করোনা নিয়ন্ত্রণে জরুরী অবস্থা । যা কি না বাংলাদেশে এই জরুরী অবস্থার প্রয়োজন হয়নি। তাছাড়া লকডাউন বাংলাদেশে প্রথম দিকে ঘোষণা করে হলেও পরে অল্প সময়ের মধ্যেই প্রত্যাহার করা হয়েছে জনস্বার্থ বিবেচনা করে।

আর এদিকে মালয়েশিয়া গত এক বছর ধরে লকডাউন নামক মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে প্রবাসীদের কপালে জগদ্দল পাথরের মত চেপে ধরেছে। এমতাবস্থায় প্রবাসীরা কাজ কর্ম হাড়িয়ে অনেকটা অসহায় হয়ে গৃহবন্দীর মত মানবেতর জীবনযাপন করছেন। প্রবাসীদের এই দৈন্যদশা থেকে কবে মুক্তি মিলবে এটা এখনই সঠিক করে বলা মুশকিল। পাশাপাশি মালয়েশিয়ার অর্থনীতিও হুমকির মুখে পড়েছে। জিডিপি এখন নিম্নমুখী। এদিকে কেউ বলছে রাজনৈতিক কারনে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। আবার কেউ বলছে পার্লামেন্টের পিছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসা মহিউদ্দিন সরকারের ক্ষমতা টিকে থাকতেই এ কৌশল। যাতে করে লকডাউন ও জরুরি অবস্থায় কোন নির্বাচন আয়োজন করতে না হয়। মালয়েশিয়ার রাজনৈতিক অস্থিরতা এখন আগের চেয়েও প্রকট। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য নেই কোন মিটিং মিছিল, নেই কোন জ্বালাও পোড়াও, দেশটির মানুষ খুবই ভদ্র ও শান্তি প্রিয় এবং সামাজিক। এ যেন ঠান্ডা মাথার স্নায়ুযুদ্ধ।

মালয়েশিয়ান ও অভিবাসীগন একসাথে একই ফ্ল্যাটে,শহর নগর পাড়া মহল্লায় বাস করেন, তাদের মধ্যে কোন সময় ঝগড়াঝাটি কিংবা অস্বাভাবিক আচরণ দেখা যায় না। যদি মালয়েশিয়ানরা এত শান্তি প্রিয় জাতি যদি না হতো তাহলে লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশী সেখানে শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করতে পারতো না। যদি কোন অশান্তি দেখা দেয় খবর নিয়ে দেখা যায় এক বাংলাদেশী আরেক বাংলাদেশীর পিছনে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে ঝামেলা হয়েছে।

লেখক: আশরাফুল মামুন, প্রবাসী সাংবাদিক ও বিডি প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়ার সহ সভাপতি।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

  • 1K
    Shares