১১ ঘন্টা পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া দিয়ে পূর্বাঞ্চলের সাথে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

২৯ মার্চ, ২০২১ : ১:৫৩ অপরাহ্ণ ৫২৯

আশরাফুল মামুন: হেফাজত হরতাল ডাকার পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সব ধরনের যানবাহন চলাচল শনিবার রাত থেকেই বন্ধ হয়ে যায়। ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও রবিবার সকাল সাড়ে ৯ টায় চট্রগ্রামগামী সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রবেশের মুহুর্ত্যে হরতাল সমর্থকদের পিকেটিং এর মুখে পড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে পূর্বাঞ্চল চট্রগ্রাম ও সিলেটের সাথে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এরপর দীর্ঘ ১১ ঘন্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। হরতাল পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে গতকাল রোববার রাত ১০টায় ট্রেন চলাচল শুরু হয়। ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-নোয়াখালী ও ঢাকা-চট্টগ্রাম পথে এখন ট্রেন স্বাভাবিক ভাবে চলাচল করছে। সারাদেশে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও হেফাজতে ইসলামের হরতালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সোনার বাংলা এক্সপ্রেস এর উপর হামলার পর পূর্বাঞ্চলের সাথে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ট্রেনে হামলা ছাড়াও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১৮ নম্বর সেতু তে আগুন দেওয়া হয়। আশুগঞ্জে স্টেশনে হরতালকারীরা জড়ো হয়ে অবরোধ করে। কিছু কিছু স্থানে নাট বল্টু খুলে ফেলা হয়েছিল। সোনার বাংলা এক্সপ্রেস হমলার মুখে পুশ ব্যাক করে ভৈরব রেল স্টেশনে ফেরত পাঠানো হয়েছিল। তবে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হলেও সিগনাল সিস্টেম পিকেটাররা ধ্বংস করে ফেলায় এখনও ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টেশনে কোন ট্রেন যাত্রাবিরতি দিচ্ছে না।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশনের স্টেশনমাস্টার শোয়েব আহমেদ বলেন, গতকাল সকাল ৮টা ২০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে মালবাহী ট্রেন ছেড়ে যায়। পরে সকাল নয়টায় সিলেটের উদ্দেশে পারাবত এক্সপ্রেস ছেড়ে যায়। এরপর থেকে হরতালে উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে সোনার বাংলা এক্সপ্রেসের উপর হামলা হলে ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। পরে রাত ১০টার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ট্রেন চলাচল শুরু হয়।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।