রাজনৈতিক বিরুধে ব্যবসায়ীর উপর হামলা, কয়েক লক্ষ টাকা লুটের অভিযোগ

২৭ মে, ২০২১ : ২:৩৭ অপরাহ্ণ ৪৩১
ছবি: জুনাইদের ফলের দোকান ভাংচুর করা হচ্ছে।

তেপান্তর রিপোর্ট: রাজনৈতিক ও ব্যবসায়ীক বিরুধের জেরে এক ব্যবসায়ীর উপর অতর্কিত হামলা করে কয়েক লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার অষ্টগ্রামের মোহনপুর বাজারে গত ২২ মে এই ঘটনা ঘটে। হামলার শিকার ওই ব্যবসায়ীর নাম মোঃ জুনাইদ, তিনি সদর উপজেলার ধারসার গ্রামের হাজী আব্দুল আউয়ালের ছেলে। আর অভিযুক্তরা হলো, ধানসার গ্রামের মৃত মোতালিব মিয়ার ছেলে লীল মিয়া, মৃত আব্দুল আলীর ছেলে মোঃ জিল্লু মিয়া, তার ভাই খুরশিদ আলম ও জালাল মিয়া, মৃত মোতালিব মিয়ার ছেলে কামাল মিয়া, মৃত আমীর আলীর ছেলে শিশু মিয়া, মৃত চান্দু মিয়ার ছেলে আলী মিয়া, মৃত মোতালিব মিয়ার ছেলে মোফিজুল মিয়া, খুরশিদ আলমের ছেলে উবায়েদুল্লাহ, জিল্লু মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া, জালাল মিয়ার ছেলে ইব্রাহিম মিয়াসহ অপরিচিত আরো ৪/৫ জন। এই ঘটনায় আহত জুনাইদ মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এজাহার জমা দিয়েছেন।

ভুুক্তভোগীর সাথে কথা বলে ও এজাহার থেকে জানা যায়, আসামীরা এলাকার শক্তিশালী বংশের লোক। অপরদিকে জুনাইদ বাজারের ভালো ব্যবসায়ী। মোহনপুর বাজারে জুনাইদের দুইটি দোকান রয়েছে। আর এই বিষয়টি হিংসার চোখে দেখে আসছে ধানসার গ্রামের মৃত মোতালিব মিয়ার ছেলে লীল মিয়াসহ অন্যান্যরা। এছাড়াও রাজনৈতিক ভাবে জুনাইদ আওয়ামী যুবলীগের সদস্য, অপরদিকে অভিযুক্তরা সবাই হেফাজতে ইসলামের সমর্থক। এসবের কারনে গত ২২ মে বিকেল ৫টার সময় জুনাইদের দোকানে অভিযুক্তরা দা,লোহার রড,কিরিচ,বেনার,লাটিসোটা নিয়ে হামলা চালায়। এসময় লীল মিয়া চাইনিজ কোড়াল দিয়ে জুনাইদদের মাথায় কোপ দিলে জুনাইদ কৌশল করে বেচে যান। তখন জুনাইদকে এলোপাথারীভাবে তারা মারধোর করে আহত করে । তখন জুনাইদের বাবা ও ভাই তাকে বাচাতে আসলে তাদেরকেও মারধোর করা হয়। এসময় জুনাইদের কাপড়ের দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে কাপড় কেনার জন্য ৫ লক্ষ টাকা নিয়ে যায় তারা। জুনাইদের ফলের দোকান থেকেও ৫৫ হাজার টাকার ক্ষতিসহ ৩ লক্ষ টাকার ফল নিয়ে যায়। এছাড়াও নগদ ৮৫ হাজার টাকা ফলের দোকান থেকে নিয়ে যায়।

এসব বিষয়ে প্রধান অভিযুক্ত লীল মিয়ার সাথে যোগাযোগ করে তার বক্তব্য জানার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।