লকডাউনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পশু খামারিদের কপালে এখন চিন্তার ভাঁজ

২ জুলাই, ২০২১ : ৮:০৪ অপরাহ্ণ ৪৩১

শেখ রাজেন: আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন খামারে চলছে খৈল, ভূষি, ঘাস, খড়, বন, লালিসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক খাবার দিয়ে পশু হৃষ্টপুষ্ট করন প্রক্রিয়া। তবে হঠাৎ এই লকডাউন দেওয়ায় খামারিদের কপালে এখন চিন্তার ভাঁজ।

সারা বছর লাভের আশায় খামারে কাজ করলেও সঠিক সময়ে কোরবানির পশু বিক্রি করতে না পারলে অনেক খামার বন্ধ হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করছেন খামারিরা এবং আর্থিক ক্ষতির মূখেও পড়বেন তারা।

জেলা প্রাণিসম্পদ অফিস সূত্রে জানা যায়, চাহিদার তুলনায় কোরবানি যোগ্য অতিরিক্ত পশু মজুদ রয়েছে জেলায়।
খামারগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, প্রতিটি খামারের শ্রমিকরা পশুগুলোর পরিচর্যায় ব্যস্ত। কেউ গরুকে গোসল করাচ্ছেন, কেউ আবার খাওয়াচ্ছেন, কেউ বা পরিচ্ছন্ন করছেন। বেশ কয়েকজন খামারের মালিক তেপান্তরকে বলেন, অনলাইনে গরু বেচাকোনার পাশাপাশি খোলা বাজারে বিক্রি করতে পারলেও ভালো হতো। সহজে আমাদের ক্ষতিগুলো পুষিয়ে নিতে পারতাম।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রাণিসম্পদ সম্পদ কর্মকর্তা ডা. এ বি এম সাইফুজ্জামান তেপান্তরকে বলেন, অনলাইনে পশু কেনাবেচার জন্য প্রতিটি উপজেলায় ফেসবুক পেইজ খোলা হয়েছে। অনলাইনে পছন্দের পর ক্রেতারা ইচ্ছা করলে খামারে এসে দেখে শুনে তার কোরবানির পছন্দের পশুটি কিনতে পারবেন। এছাড়া কোরবানির পশু নিয়ে খামারিদের দুশ্চিন্তার কারণ নেই বলেও তিনি জানান।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।