ভালুকায় সাংবাদিকের পা কাটার হুমকি, থানায় জিডি!

২০ আগস্ট, ২০২১ : ১২:১২ পূর্বাহ্ণ ১০১

তেপান্তর রিপোর্ট: ময়মনসিংহের ভালুকায় নিউজনাউ টুয়েন্টিফোরের ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি ও ভালুকা উপজেলা প্রেসক্লাবের সদস্য হুমায়ুন আহমেদ (সৃজন) এর পা কেটে ফেলার হুমকি দেয়ার ঘটনায় ভালুকা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে ভালুকা মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে এই জিডি করেছেন হুমায়ুন আহমেদ, জিডি নং- ৮৪২/২১ তারিখ ১৯/০৮/২১।

সাধারন ডায়েরির বিবরনে জানা গেছে গতকাল বুধবার (১৮ আগস্ট) দুপুর ৩টার দিকে উপজেলার কাচিনা ইউনিয়নের কাচিনা গ্রামে সাংবাদিক হুমায়ুন আহমেদ এর গ্রামের বাড়িতে এসে তার পা কেটে ফেলার হুমকি দিয়েছেন একই এলাকার ইমরান ইলেকট্রনিকস এর মালিক মোঃ মিলন এর স্ত্রী।

হুমায়ুন আহমেদ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, গ্রামের বাড়িতে গিয়ে তার একটি গাছ অর্ধেক কাটা অবস্থায় পেয়ে প্রতিবেশি ইমরান ইলেকট্রনিকস এর মালিক মিলনকে মোবাইলে বিষয়টি জিজ্ঞেস করেন। মিলনের সাথে মোবাইলে কথা বলা অবস্থায় তার স্ত্রী বাড়ি থেকে বের হয়ে এসে সরাসরি তার পে কেটে নেয়ার হুমকি দেন। এর আগেও গাছের ডাল তাদের আঙ্গিনায় থাকার অজুহাতে একটি মেহগনি গাছ কেটে ফেলেন এবং একটি কাঠাল গাছের বেশিরভাগটা কেটে ফেলেছিল মিলনরা। পরে সেই বিষয়ে একবার কাজের লোকের আরেকবার মিস্ত্রিদের ভুল হয়ে গেছে বলে জানিয়ে ক্ষমা চেয়ে পার পেয়ে যান। কিন্তু এবারও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে সেই বিষয়ে মোবাইলে কথা বলা অবস্থায় তার স্ত্রী এভাবে তার বাড়ি থেকে এই বাড়িতে ছুটে এসে সরাসরি ‘গাছ কেটেছি কেটেছি এবার তোর পা’ও কেটে ফেলবো’ এ ধরনের হুমকি দেন। পা কেটে ফেলার হুমকি দেয়ার ঘটনাটি তাৎক্ষনিক মোবাইলে রেকর্ড করেন ওই সাংবাদিক।
এরপর মিলন পুনরায় ফোন করে প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত যাওয়ার কথা বলেন এবং নিজেও নানা ধরনের হুমকি দেন।

সাংবাদিক হুমায়ুন আহমেদের মা শারিরীকভাবে খুবই অসুস্থ্য এবং তিনি বাড়িতে একাই থাকেন আর একারনে তার ও তার মায়ের নিরাপত্তা নিয়েও শংকিত হুমায়ুন আহমেদ।

এ ঘটনাটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মু্শফিকুর রহমান লিটনকে তাৎক্ষনিকভাবে জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি। এরপর আজ দুপুরে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম তদন্ত সাপেক্ষে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।