বিজয়নগরে পূর্ব শত্রুতার জেরে ছেলেদেরকে সাথে নিয়ে আপন ভাইকে হত্যার চেষ্টা

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ : ৯:১১ অপরাহ্ণ ৪২৪

তেপান্তর রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরের বাদে হাড়িয়া গ্রামে জায়গা জমির বিষয়ে পূর্ব শত্রুতার জের দরে ৫৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তারই আপন ভাইয়ের বিরুদ্ধে। গত ১৮ সেপ্টেম্বর বাদে হাড়িয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। আহত ফরিদ মিয়া ওই গ্রামের মৃত ফুল মিয়ার ছেলে। ঘটনার পর মারাতœক আহত ফরিদ মিয়াকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরবর্তীতে অবস্থা অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার পর দিন ১৯ সেপ্টেম্বর আহত ফরিদ মিয়ার স্ত্রী মর্জিনা বেগম বাদী হয়ে বিজয়নগর থানায় এজাহার জমা দিয়েছেন। এজাহারে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে ৫ জনকে আসামী করা হয়েছে। আসামীরা হলো, চম্পকনগর ইউনিয়নের বাদে হাড়িয়া গ্রামের মৃত ফুল মিয়ার ছেলে আব্দুর রহমান, আব্দুর রহমানের ছেলে সবুজ মিয়া, আব্দুর রহমানের ছেলে রনি মিয়া, আব্দুর রহমানের স্ত্রী হেনা বেগম ও খোদে হাড়িয়া গ্রামের মৃত সফর উদ্দিনের ছেলে শাহীন মিয়া।

বাদী পক্ষের অভিযোগ ও এজাহার থেকে জানা যায়, ১৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় ফরিদ মিয়াকে হত্যার উদ্যেশে আব্দুর রহমানের ছেলে সবুজ মিয়ার বাড়ির পাশে অভিযুক্তরা সবাই উৎ পেতে থাকে। ফরিদ মিয়া চম্পকনগর থেকে ওই রাস্তা দিয়ে তার বাড়ি যাওয়ার সময় সব আসামিরা একসাথে ফরিদ মিয়ার উপর হামলা করে। এসময় রাম দা, শাবল লোহার রড মরিচের পানি দিয়ে ফরিদ মিয়ার উপর অতর্কিত হামলা চালায় তারা। রাম দা, শাবল ও লোহার রড দিয়ে আঘাত করায় তিনি মারাতœক রক্তাক্ত জখম হয়। তখন ফরিদ মিয়ার আর্তচিৎকারে আশপাশের মানুষ এসে তাকে উদ্ধার করে। সাথে সাথে তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরবর্তীতে ফরিদ মিয়ার অবস্থা অবনতি হওয়ায় সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ব্যপারে বিজয়নগর থানার ওসি মির্জা মোহাম্মদ হাসান তেপান্তরকে হামলার ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এবিষয়ে অভিযুক্তদের বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।