যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ : ১০:৩৮ অপরাহ্ণ ৪৮৩

শেখ রাজেন: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে যৌতুকের টাকার জন্য ফাহিমা বেগম (২৫) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে।

নিহত ফাহিমা নাসিরনগর উপজেলার ফান্দাউক ইউনিয়নের ফান্দাউক গ্রামের মো. রিপন মিয়ার মেয়ে। ফাহিমার স্বামী উপজেলার সদর ইউনিয়নের নাসিরপুর গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার ছেলে , ওই ঘটনায় নিহত ফাহিমার স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে -১৫ সেপ্টেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জজ আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন বাবা রিপন মিয়া

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য ফাহিমাকে নির্যাতন করতেন স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন। নির্যাতনের বিষয়টি বেশ কয়েকবার ফাহিমা তার বাবাকে মুঠোফোনে জানায়। এই দিকে -১২ সেপ্টেম্বর রাতে যৌতুকের দাবি করা দুই লাখ টাকা আনার জন্য ফাহিমাকে চাপ দেওয়া হয়। কিন্তু ফাহিমা টাকা আনতে অস্বীকৃতি জানালে তার সঙ্গে স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকদের কথা কাটাকাটি হয়। পরে স্বামীসহ অন্যরা মিলে ফাহিমাকে পিটিয়ে হত্যা করে।
মামলার এজাহারে আরও বলা হয়েছে, মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ায় তার মুখে বিষ ঢেলে আত্মহত্যা করেছে বলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে। পরে নাসিরনগর থানা পুলিশ তার মৃত লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
নিহত গৃহবধূর বাবা রিপন মিয়া বলেন, ‘রোববার রাতে আমার মেয়েকে যৌতুকের দুই লাখ টাকার জন্য পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকে ভিন্নখাতে নিতেই মুখে ইঁদুর মারার বিষ ঢেলে দেয়া হয় ‘

নাসিরনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুল্লাহ সরকার বলেন, ‘চিকিৎসকরা ওয়াশ করে তার মুখ থেকে ইঁদুর মারার বিষ বের করেছে। এই রিপোর্ট আমাদের কাছে আছে। লাশ ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

তেপান্তরে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।